স্টাফ রিপোর্টার, তমলুক: সরকার ঢালাওভাবে মদের দোকান খোলার লাইসেন্স দিয়ে চলেছে। ফলে যত্রতত্র খোলা হচ্ছে মদের দোকান। যা নিয়ে এলাকায় এলাকায় মহিলা থেকে স্থানীয় মানুষ ক্ষুব্ধ হয়ে আন্দোলনে নেমেছে। বেশ কয়েকদিন ধরে জেলার বিভিন্ন প্রান্তে মদের দোকান খোলাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াচ্ছে।

গ্রামের রাস্তায় সরকারি লাইসেন্স ভুক্ত মদের দোকান খোলাকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল পূর্ব মেদিনীপুরের এগরা থানার মির্জাপুরের পটনা বাজারে। বুধবার বিকেল নাগাদ শতাধিক গ্রামবাসীরা একজোট হয়ে মদের দোকানে হামলা চালায়। লাঠিসোটা নিয়ে ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হয় দোকানটিকে। এরপর দোকানের আসবাবপত্রে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। নষ্ট করে দেওয়া হয় মদের বোতলগুলি।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, এই এলাকায় গ্রামের রাস্তার পাশে মদের দোকান খোলার পর থেকেই এলাকার মানুষের জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছিল। তাঁদের দাবি, ওই রাস্তা দিয়ে কোনও স্কুল ছাত্রী, মহিলাদের যাতায়াত দুষ্কর হয়ে গিয়েছিল। প্রায়শই মেয়েদের উত্যক্ত করত যুবকরা। প্রতিবাদ করলেই মদ্যপ যুবকদের হুমকির মুখে পড়তে হত মহিলাদের। সেই সঙ্গে গ্রামের যুবকরা ক্রমেই মাদকাসক্ত হয়ে বাড়িতে গিয়েও ঝামেলা বাঁধাত।

এরই প্রতিবাদে একাধিকবার আওয়াজ তুলেছে গ্রামবাসীরা। তবে শেষ পর্যন্ত বুধবার ওই মদের দোকান ভেঙে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন মহিলারা। এরপরেই দলবেঁধে ঘটনাস্থলে এসে দোকানটিকে ভেঙে গুড়িয়ে দেন তাঁরা। ঘটনার খবর পেয়ে এগরা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও ক্ষুব্ধ জনতা ততক্ষণে সব ভেঙে নষ্ট করে দিয়েছে। এই ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা রয়েছে। তবে এই ঘটনায় পুলিশে কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি। তাই কেউ আটক বা গ্রেফতার হয়নি বলে পুলিশ সূত্রে জানানো হয়েছে।