নয়াদিল্লি: মক্কা মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় সব অভিযুক্তদের বেকসুর খালাস বলে ঘোষণা করল আদালত। হায়দরাহাদে ১১ বছর আগে এই বিস্ফোরণ ঘটনা ঘটেছিল। অভিযুক্ত ছিলেন ১০ জন। সেই মামলার রায়দান ছিল সোমবার।

২০০৭ সালের ১৮ মে শুক্রবারের নামাজ চলাকালীন ওই বড়সড় বিস্ফোরণ ঘটেছিল। ঘটনায় ৯ জনের মৃত্যু হয়। জখম হন ৫৮ জন। প্রাথমিক পুলিশি তদন্তের পর এই বিস্ফোরণ কাণ্ডের তদন্তভার তুলে দেওয়া হয় সিবিআই-এর হাতে। ২০১১ সালে তদন্ত হাতে নেয় এনআইএ।

উগ্র হিন্দুত্ববাদী জঙ্গিরা এর পিছনে বলে প্রাথমিক তদন্তে জানা যায়। মোট ১০ অভিযুক্তের মধ্যে অবশ্য ধরা পড়েছিলেন মাত্র পাঁচ জন। ধৃতেরা ছিলেন দেবেন্দ্র গুপ্ত, লোকেশ শর্মা, স্বামী অসীমানন্দ ওরফে নবকুমার সরকার, ভরত ভাই এবং রাজেন্দ্র চৌধুরি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।