লন্ডন: ৩০ বছর পর চ্যাম্পিয়নশিপ নিশ্চিত হয়েছে আগেই। তাও আবার রেকর্ড গড়ে সাত ম্যাচ বাকি থাকতে। ২০০০-০১ স্যার আলেক্স ফার্গুসনের ম্যান ইউ’কে এক্ষেত্রে পিছনে ফেলেছে জুর্গেন ক্লপের দল। সেবার পাঁচ ম্যাচ বাকি থাকতে লিগ পকেটে পুড়েছিল ম্যান ইউ। এতো সবকিছুর পরেও আরও এক রেকর্ডের অন্বেষণ জারি লিভারপুলে। এবার সবচেয়ে বেশি পয়েন্ট সংগ্রহ করে লিগ জয়ের হাতছানি ক্লপের দলের সামনে।

২০১৭-১৮ ম্যাঞ্চেস্টার সিটি ১০০ পয়েন্ট সংগ্রহ করে ইপিএল সেরা হয়েছিল। যা সর্বকালীন রেকর্ড। চলতি বছর সেই রেকর্ড ভাঙার হাতছানি লিভারপুলের সামনে। সালাহর জোড়া গোলে ভর করে ব্রিটনকে হারিয়ে সেই রেকর্ডের দোউড়ে প্রবলভাবে রইল লিভারপুল। অ্যাওয়ে ম্যাচে বুধবার ব্রিটনকে ৩-১ গোলে হারাল তারা। সালাহর জোড়া গোল ছাড়া লিভারপুলের হয়ে অপর গোলটি অধিনায়ক জর্ডান হেন্ডারসনের।

ম্যাচ শুরুর দশ মিনিটের মধ্যেই এদিন জোড়া গোল তুলে নেয় রেডস’রা। তৃতীয় মিনিটে ব্রিটনের এক ডিফেন্ডারকে ধাওয়া করে তার মন্থর গতির সুযোগ নেন নবি কেইটা। ব্রিটনের ওই ডিফেন্ডারের থেকে বল স্ন্যাচ করে তা মোহামেদ সালাহর জন্য সাজিয়ে দেন তিনি। একা গোলরক্ষককে পেয়ে বলে জালে রাখতে ভুল করেননি মিশর স্ট্রাইকার। ৮ মিনিটে অধিনায়ক হেন্ডারসন বক্সের বাইরে থেকে একটি দূরপাল্লার শটে গোল করে যান। অধিনায়কের গোলের বলটি সাজিয়ে দেন সালাহই।

এরপর বিক্ষিপ্ত আক্রমণে গোলমুখ খোলার চেষ্টা করে যায় ব্রিটন। প্রথমার্ধের শেষ মিনিটা তারা সফলও হয়। ৪৫ মিনিটে ডানপ্রান্তিক একটি ক্রস থেকে দুরন্ত ভলিতে ব্যবধান কমান ব্রিটন স্ট্রাইকার লিয়ান্দ্রো। যদিও দ্বিতীয়ার্ধে আর ম্যাচে সমতা ফেরাতে পারেনি তারা। উলটে ৭৬ মিনিটে আর একটি গোল হজম করে তারা। রবার্টসনের কর্নার থেকে ম্যাচে তাঁর দ্বিতীয় এবং চলতি লিগের ১৯তম গোলটি করে যান সালাহ। গোল্ডেন বুটের দৌড়ে লেস্টার সিটি স্ট্রাইকার জেমি ভার্ডির চেয়ে তিন গোল পিছিয়ে তিনি।

এই জয়ের ফলে চার ম্যাচ বাকি থাকতে লিভারপুলের সংগ্রহে ৯২ পয়েন্ট। অর্থাৎ ম্যান সিটির রেকর্ড টপকাতে বাকি চার ম্যাচে ক্লপের ছেলেদের দরকার ৯ পয়েন্ট।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ