নিউক্যাশল: শীর্ষে ওঠার সাপ-লুডোয় জমাট লড়াই লিভারপুল ও ম্যাঞ্চেস্টার সিটির৷ এক ম্যাচ কম খেলায় অ্যাডভান্ডেজ ম্যান সিটির৷ তবে ছবিটা দু’দলের কাছেই স্পষ্ট৷ চ্যাম্পিয়ন হতে হলে জিততে হবে সব ম্যাচ৷ লিভারপুল ৩৭ রাউন্ডের খেলা শেষ করেছে৷ অর্থাৎ হাতে রয়েছে একটি ম্যাচ৷ সিটি খেলেছে ৩৬ ম্যাচ৷ বাকি রয়েছে দু’টি৷

নিউক্যাশল ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে উত্তেজক জয়ে লিভারপুল শীর্ষ স্থান ধরে রাখলেও লেস্টারের বিরুদ্ধে সিটি জিতলে তারা ফিরবে এক নম্বরে৷ আপাতত ৩৭ ম্যাচে অল রেডসদের সংগ্রহ ৯৪ পয়েন্ট৷ ৩৬ ম্যাচে সিটির সংগৃহীত পয়েন্ট ৯২৷

আরও পড়ুন: জুভেন্তাসের হার বাঁচিয়ে রোনাল্ডো বললেন প্রতিদিন আজও পরীক্ষায় বসতে হয়

ঘরের মাঠে নিউক্যাশলকে ৪-০ গোলে হারিয়েছিল লিভারপুল৷ এবার অ্যাওয়ে ম্যাচে জয় তুলে নিলেও শেষ পর্যন্ত কড়া প্রতিদ্বন্দ্বিতার মুখে পড়তে হয় সালাহদের৷ ম্যাচে দু’বার এগিয়ে গিলেও লিড খোয়াতে হয় লিভারপুলকে৷ দু’বার ম্যাচে সমতা ফেরায় নিউক্যাশল৷ শেষমেশ পরিবর্ত অরিজির গোলে শেষরক্ষা হয় লিগ টপারদের৷

৩-২ গোলের লড়াকু জয়ে স্বস্তি ফিরলেও দুশ্চিন্তাও সঙ্গী হয় ম্যাচ লিভারপুলের৷ দলের সেরা তারকা মহম্মদ সালাহ মাথায় চোট পেয়ে স্ট্রেচারে মাঠ ছাড়েন৷ গুরুত্বপূর্ণ শেষ ম্যাচের আগে ফিট হয়ে না উঠলে লড়াই কঠিন হয়ে দাঁড়াবে তাদের৷

আরও পড়ুন: বিশ্রামে মেসি অ্যান্ড কোং, হার বার্সেলোনার

ম্যাচের ১৩ মিনিটের মাথায় আর্নল্ডের পাস থেকে গোল করে লিভারপুলকে এগিয়ে দেন ভ্যান ডিক৷ ২০ মিনিটের মাথায় আতসুর গোলে সমতায় ফেরে নিউক্যাশল৷ ২৮ মিনিটে সালাহকে গোলের পাস বাড়ান আর্নল্ড৷ মিশরীয় তারকা ২-১ গোলে এগিয়ে দেন লিভারপুলকে৷ ৫৪ মিনিটে ম্যানকুইলোর পাস থেকে গোল করে নিউক্যাশলকে পুনরায় সমতায় ফেরান রনডন৷

৭৩ মিনিটে মাথায় চোট পেয়ে স্ট্রেচারে মাঠ ছাড়েন সালাহ৷ তাঁর পরিবর্তে মাঠে নামা অরিজি ৮৬ মিনিটে শাকিরির পাস থেকে লিভারপুলের হয়ে জয়সূচক তৃতীয় গোলটি করেন৷