লন্ডন: মহারণ শুরুর আগে আর্সেনালের স্প্যানিশ কোচ উনাই এমেরি অ্যাওয়ে ম্যাচে এগিয়ে রেখেছিলেন সালাহদেরই। পাশাপাশি গত মরশুমে ৫-১ গোলের হারের টাটকা স্মৃতি নিয়েই শনিবার অ্যানফিল্ডে লিভারপুলের মুখোমুখি হয়েছিল গানার্সরা। প্রথমার্ধের ফুটবল কিছুটা আশ্বস্ত করলেও ফরোয়ার্ডদের সঙ্গে ডিফেন্ডারদের উপর্যুপরি ব্যর্থতায় অ্যানফিল্ড থেকে ফের খালি হাতে ফিরতে হল আর্সেনালকে। মিশরীয় স্ট্রাইকার মহম্মদ সালাহর জোড়া গোল ও জোয়েল মাটিপের একমাত্র গোলে গানার্সদের হারিয়ে তিনে তিন দ্য রেডস’রা।

প্রথমার্ধের প্রথম কোয়ার্টারে নিজেদের গুছিয়ে নেওয়ার চক্করে অনেকটাই নিষ্প্রভ ছিল লিভারপুল। সেই সুযোগে দাপট দেখায় আর্সেনাল। লিভারপুল গোলরক্ষক একটি বল ক্লিয়ার করতে বক্সের বাইরে চলে এলে ম্যাচের ১১ মিনিটে গোলের সুযোগ তৈরি হয় আর্সেনালের। আংশিক প্রতিহত হওয়া বল পেয়ে তা ফাঁকা গোলে ঠেলতে ব্যর্থ হন আউবামেয়াং। আর্সেনালের প্রথম একাদশে এদিন অভিষেক হওয়া নিকোলাস পেপের কাছেও সুযোগ চলে আসে দলকে এগিয়ে দেওয়ার। তবে ব্যর্থ হন তিনি।

অন্যদিকে প্রতি আক্রমণে ধীরে ধীরে ম্যাচে ফিরতে থাকা জুর্গেন ক্লপের ছেলেরা সেই অর্থে গোলের ইতিবাচক সুযোগ তৈরি করে উঠতে না পারলেও ৪১ মিনিটে কাজের কাজটি করে যান জোয়েল মাটিপ। ডান দিক থেকে আলেকজান্ডার আর্নল্ডের কর্নার থেকে ডেডলক ভাঙেন তিনি। এক গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় লিভারপুল।

বিরতি থেকে ফিরে দাভিদ লুইসের ভুলে ম্যাচে দ্বিতীয় গোলটি পেয়ে যায় লিভারপুল। সদ্য চেলসি থেকে আসা ব্রাজিলিয়ান ডিফেন্ডার এক্ষেত্রে বল ধরে বক্সে আগুয়ান সালাহকে অবৈধভাবে বাধা দিলে পেনাল্টি পায় লিভারপুল। জোরালো স্পটকিক থেকে ব্যবধান ২-০ করেন মিশরীয় স্ট্রাইকার। ৫৮ মিনিটে ফের গোল সালাহর। আর্সেনাল ডিফেন্সকে চূর্ণ করে একক দক্ষতায় দলকে তিন গোলের ব্যবধান এনে দেন সালাহ।

ড্যামেজ কন্ট্রোলে নেমে আর্সেনাল কোচ পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নামান লুকাস টোরেরাকে। ৮৫ মিনিটে সুপার-সাব টোরেরা একটি গোল শোধ দিলেও তা জয় বা ড্রয়ের জন্য পর্যাপ্ত ছিল না। শেষ অবধি ৩-১ গোলে দুরন্ত জয়ে তিন পয়েন্ট নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়ে দ্য রেডস’রা। লিগের প্রথম ম্যাচ তিন ম্যাচ থেকে ৯ পয়েন্ট সংগ্রহ করে লিগ শীর্ষে ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা।

 

দিনের অন্য খেলায় ক্রিস্টাল প্যালেসের কাছে হেরে বসল ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড। মার্কাস র‍্যাশফোর্ডের পেনাল্টি নষ্ট, তিন কাঠির নীচে শেষমুহূর্তে ডি গিয়ার ভুলে ঘরের মাঠে ১-২ গোলে পরাজিত রেড ডেভিলসরা। ৩২ মিনিটে জর্ডন আয়েয়ুর গোলে এদিন এগিয়ে যায় ক্রিস্টাল প্যালেস। এরপর পেনাল্টি থেকে দলকে সমতায় ফেরানোর সুযোগ পেলেও তা নষ্ট করেন ইংরেজ স্ট্রাইকার র‍্যাশফোর্ড। ৮৯ মিনিটে ড্যানিয়েল জেমস ম্যান ইউ’কে সমতাসূচক গোল এনে দিলেও অতিরিক্ত সময় বক্সের মধ্যে বাঁ-পায়ের কানাকুনি শটে ডি গিয়াকে পরাস্ত করে ক্রিস্টাল প্যালেসকে জয় এনে দেন ভ্যান আনহোল্ট।