দ্বিতীয় দফা

গোসাবা থেকে চিত্ত প্রামাণিক

পাথরপ্রতিমা থেকে অসিত হাসদার

কাকদ্বীপ থেকে দীপঙ্কর জানা

সাগর থেরে বিকাশ কামিলা

তমলুক থেকে হরেকৃষ্ণ বেরা

পাঁশকুড়া পূর্ব থেকে দেবব্রত পট্টনায়ক

পাঁশকুড়া পশ্চিম থেকে শিন্তু সেনাপতি

ময়না থেকে অশোক দিন্দা

নন্দকুমার থেকে নীলাঞ্জল অধিকারি

মহিষাদল থেকে বিশ্বনাথ ব্যানার্জি

হলদিয়া থেকে তাপসী মণ্ডল

নন্দীগ্রাম থেকে শুভেন্দু অধিকারী

চাঁদিপুর থেকে পুলককান্তি গুড়িয়া

নারায়নগড় থেকে রামপ্রসাদ গিরি

সবং থেকে অমূল্য মাইতি

পিংলা থেকে অন্তরা ভট্টাচার্য

ডেবরা থেকে ভারতী ঘোষ

দাসপুর থেকে প্রসন্ন বেড়া

ঘাটাল থেকে শীতল কাপথ

চন্দ্রকোনা থেকে শিবরাম দাস

কেশপুর থেকে প্রতীশ রঞ্জন কুমার

তালডাংরা থেকে শ্রী শ্যামল কুমার সরকার

বাঁকুড়া থেকে নিলাদ্রী শেখর দানা

ওন্ডা থেকে অমর শাখা

বিষ্ণুপুর থেকে তন্ময় ঘোষ

কোতুলপুর থেকে হরকালি পাটিহার

ইন্দাস থেকে নির্মল ধারা

সোনামুখি থেকে দিবাকর ঘরমি

প্রথম দফা

বান্দোয়ান থেকে পারসি মুর্মু

বলরামপুর থেকে বনেশ্বর মাহাতো

বাঘমুণ্ডির সিট জোটের দলের (আটসু) জন্য ছেড়েছে বিজেপি

জয়পুর থেকে নরহরি মাহাতো

পুরুলিয়া থেকে সুদীপ মুখার্জি

মানবাজার থেকে গৌরী সিং সর্দার

পয়রা থেকে নাদিয়া চন্দ বাউরি

রঘুনাথপুর থেকে বিবেকানন্দ বাউরি

সালতোরা থেকে চন্দনা বাউরি

ছাতনা থেকে সত্যনারায়ণ মুখার্জি

রানিবাঁধ থেকে ক্ষুদিরাম টুডু

রায়পুর থেকে সুধাংশু হাঁসদা

খড়গপুর থেকে তপন ভুঁইয়া

গড়বেতা থেকে মদন রুইদাস

শালবনি থেকে রাজীব কুন্ডু

মেদিনীপুর থেকে শমিত দাস

বিনপুর থেকে পালন সরিন

কেশরি থেকে শ্রীমতী সোনালি মুর্মু

রামনগর থেকে স্বদেশ রঞ্জন নায়ক

এগরা থেকে অরূপ দাস

দাঁতন শ্রী শক্তিপদ নায়ক

নয়াগ্রাম থেকে বকুল মুর্মু

গোপীবল্লভপুর থেকে সঞ্জীত মাহাতো

ঝাড়গ্রাম থেকে সুখময় সৎপতি

ভগবানপুর থেকে রবীন্দ্রনাথ মাইতি

খেজুরি থেকে শান্তনু প্রামাণিক

কাঁথি দক্ষিণ থেকে অরূপ কুমার দাস

কাঁথি উত্তর থেকে শ্রীমতী সুনীতা সিংহা

পটাশপুর থেকে ড. অম্বুজাক্ষ মোহান্তি

 

 

নরেন্দ্র মোদী, রাজনাথ সিং, অমিত শাহ, নীতীন গড়করি সহ অনেকে বৈঠক করে প্রার্থী তালিকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

পশ্চিমবঙ্গের বিধানসভা কেন্দ্রের নির্বাচনে প্রথম দু’দফার প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করছে বিজেপি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.