কলকাতা: দিনের প্রথম সেশনে ভারতীয় বোলাররা ছড়ি ঘোরানোর পর দ্বিতীয় সেশনের প্রথম ঘণ্টাতেও জারি থাকে ইশান্ত শর্মাদের দাপট৷ বাংলাদেশকে প্রথম ইনিংসে ১০৬ রানে অলআউট করে দেয় ভারত৷ পালটা ব্যাট করতে নেমে ভারত ইনিংসের শুরুতে ময়াঙ্ক আগরওয়ালের উইকেট হারিয়ে বসলেও গোধুলির কঠিন সময় নির্বিঘ্নে কাটিয়ে দেয়৷ যদিও রোহিত শর্মা জীবন দান পান আল-আমিনের হাত থেকে৷ চায়ের বিরতিতে ১২ ওভার ব্যাট করে ১ উইকেটের বিনিময়ে ৩৫ রান তুলেছে ভারত৷ রোহিত ১৩ ও পূজারা ৭ রানে ব্যাট করছেন৷

ক্যাচ মিস: ১২তম ওভারে আবু জায়েদের প্রথম বলে রোহিত শর্মার সহজ ক্যাচ হাতছাড়া করেন আল-আমিন হোসেন৷ রোহিত ব্যাট করছিলেন ব্যক্তিগত ১২ রানে৷

১০ ওভার: ময়াঙ্ক আগরওয়াল আউট হওয়ার পর টিম ইন্ডিয়া সন্ধ্যার কঠিন সময়ে সতর্ক হয়ে ব্যাট করে৷ ৫ ওভার শেষে ভারত ১ উইকেটে ২৬ রান তুলেছিল৷ পরের ৫ ওভারে মাত্র ২ রান যোগ করেন রোহিত শর্মা ও চেতেশ্বর পূজারা৷ ১০ ওভার শেষে ভারত ১ উইকেটে ২৮ রান তুলেছে৷

উইকেট: পঞ্চম ওভারে আল-আমিনের চতুর্থ বলে স্লিপে মেহেদি হাসানের হাতে ধরে পরে যান ময়াঙ্ক আগরওয়াল৷ ভারতের প্রথম উইকেটের পতন৷ ময়াঙ্ক: ১৪৷ ভারত: ২৬/১৷

প্রথম ছক্কা: প্রথম ওভারে আল-আমিনের পঞ্চম বলে ভারতের মাটিতে গোলাপি বলে দিন-রাতের টেস্টে প্রথম ছক্কা মারেন রোহিত শর্মা৷ মাত্র তিনটি বল ব্যাট করেই ছক্কা হাঁকান হিটম্যান৷

প্রথম বাউন্ডারি: ইনিংসের প্রথম ওভারের প্রথম বলেই আল-আমিন হোসেনকে বাউন্ডারিতে পাঠান ময়াঙ্ক আগরওয়াল৷

জোড়া কনকাশন: ব্যাট করার সময় মহম্মদ শামির বাউন্সারে হেলমেটে আঘাত লাগে বাংলাদেশের দুই ব্যাটসম্যান লিটন দাস ও নঈম হাসানের৷ লিটন ব্যাট করতে নামেননি৷ তাঁর কনকাশন পরিবর্ত হিসাবে মেহেদি হাসান ব্যাট করতে নামেন৷ লিটনের ছিটকে যাওয়ায় মহম্মদ মিঠুন উইকেটকিপারের গ্লাভসজোড়া হাতে তোলেন৷ যেহেতু লিটন বল করেন না, তাই বিশেষজ্ঞ স্পিনার হওয়া সত্ত্বেও ম্যাচে বল করতে পারবেন না তাঁর পরিবর্ত মেহেদি৷ পরে নঈমের কনকাশন পরিবর্ত হিসাবে মাঠে নামেন তাইজুল ইসলাম৷ যেহেতু একজন বোলারের পরিবর্ত হিসাবে তাইজুল মাঠে নেমেছেন, তাই তাঁর বোলিং করতে বাধা নেই৷

ইডেনে গোলাপি বলে ঐতিহাসিক দিন-রাতের টেস্টে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামে বাংলাদাসে৷ ৩০.৩ ওভারে বাংলাদেশের প্রথম ইনিংস শেষ হয়ে যায় ১০৬ রানে৷ শাদমান ইসলাম ২৯, লিটন দাস ২৪ (অবসৃত) ও নঈম হাসান ১৯ রান করেন৷ লিটন অবসৃত হওয়ার পর তাঁর কনকাশন পরিবর্ত হিসাবে ব্যাট করতে নামেন মেহেদি হাসান৷ ইশান্ত শর্মা ২২ রানে ৫ উইকেট নেন৷ উমেশ যাদব ৩টি ও মহম্মদ শামি ২টি উইকেট দখল করেন৷