স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সাহিত্য ভালোবাসেন অথচ কলিকাতা লিটল ম্যাগাজিন লাইব্রেরি ও গবেষণা কেন্দ্রের নাম শোনেননি, এমন কাউকে হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। কলেজ স্ট্রিটে টেমার লেনের লিটল ম্যাগাজিন লাইব্রেরি ১৯৭৮ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। কেন্দ্রের কর্ণধার সন্দীপ দত্ত নিজেও সুলেখক। এই লাইব্রেরি এ বছর ৪৩ বছরে পদার্পণ করল।

এত বছর ধরে বহু গবেষককে সাহায্য করে এসেছে এই লাইব্রেরি। পাশাপাশি বহু সাহিত্যপ্রেমী শুধুমাত্র প্রাণের তাগিদে ছুটে আসেন এখানে। ‘পরিচয়’ পত্রিকা থেকে শুরু করে ‘কৃত্তিবাস’, ‘শতভিষা’-সহ আরও অনেক ছোট পত্রিকার প্রত্যেকটি সংখ্যা এই ঐতিহাসিক লাইব্রেরিতে মজুত রয়েছে। মাসিক অর্থব্যয়ের মাধ্যমে এখানে বসে দুষ্প্রাপ্য লিটল ম্যাগাজিন পড়ার সুযোগ পান পাঠকেরা।

রবিবার এই লিটল ম্যাগাজিন লাইব্রেরির ৪২তম প্রতিষ্ঠাদিবস উদযাপন হল কলেজ স্ট্রিটের মহাবোধি সোসাইটিতে। প্রতিবারের মতো এবারও লাইব্রেরির বার্ষিক অনুষ্ঠান উপলক্ষে জমায়েত হয়েছিল গুণীজনেরা। অনুষ্ঠানে সম্মান জানানো হয় কয়েকজন কৃতি সাহিত্যককে। প্রাবন্ধিক সম্মাননা পেলেন জহর সেন মজুমদার।

সেরা লিটল ম্যাগাজিনের পুরস্কার পেল একসঙ্গে তিনটি পত্রিকা ‘মাঝি’, ‘দ্যোতনা’ ও ‘মায়ামেঘ’ পত্রিকা। গবেষক সম্মাননা পেলেন দেবতুষি মিশ্র, সহেলী চৌধুরী, শ্রাবন্তী মিত্র মুন্সী, মহম্মদ সাইফুল আহমেদ। সারস্বত সম্মাননা পেলেন রণজিৎ দেব, ডা.অসিত দাস, স্বপন ঠাকুর এবং সুপ্রতীপ দেবদাস। এছাড়া ছোটগল্প পুরস্কার পেলেন শুভংকর গুহ।

রবি সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ অনুষ্ঠানটি দেখতে হাজির ছিলেন বহু শ্রোতা। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বনামধন্য সাহিত্যিক স্বপ্নময় চক্রবর্তী। তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন লাইব্রেরিটির প্রাসঙ্গিকতার কথা। লাইব্রেরি বহু জায়গায় আছে, কিন্তু শুধুমাত্র লিটল ম্যাগাজিন দিয়ে একটি লাইব্রেরি গড়ে তোলা সোজা কথা নয়। একমাত্র সন্দীপ দত্তই সেই অসাধ্য সাধন করতে পেরেছেন। এমন লাইব্রেরি আর কোথাও নেই।