সেভিয়া: স্প্যানিশ সুপার কাপ ফাইনালে বার্সেলোনার হারের পাশাপাশি কাঁটা হয়ে থাকল লিওনেল মেসির লাল-কার্ড৷ ১৭ বছরের বার্সেলোনার কেরিয়ারে প্রথমবার লাল-কার্ড দেখলেন মেসি৷ সেই সঙ্গে বার্সায় শেষলগ্নে কালির আঁচড় লাগল মেসির কেরিয়ারে৷ সুপার কাপ খেতাব হাতছাড়া হওয়ার জ্বালা বুকে নিয়ে লাল-কার্ড দেখে মাথা নিচু করে মাঠ ছাড়েন ফুটবলের রাজপুত্র৷

রবিবার রাতে সেভিয়ায় অতিরিক্ত সময়ে স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনালে ৩-২ গোলে জিতে বিলবাও৷ তবে অঁতোয়ান গ্রিজমানের জোড়া গোলে দু’বার এগিয়ে গিয়েছিল বার্সেলোনা৷ প্রথমবার অস্কার দে মার্কোসের গোলে সমতায় ফেরার পর ৯০ মিনিটে আসিয়েরের গোলে খেতাবের লড়াইয়ে ফেরে বিলবাও৷ আর অতিরিক্ত সময়ে ইনাকির গোলে জয় নিশ্চিত করে মার্সেলিনোর দল৷

ম্যাচের কয়েক ঘণ্টা আগেও মেসির খেলা নিয়ে অনিশ্চিয়তা ছিল৷ প্রথম একাদশে মেসিকে রাখেননি রোনাল্ড কোম্যান৷ তবে দিকে কোচ তাঁকে নামালেও পুরো ম্যাচ খেলতে পারেননি মেসি৷ কারণ শেষ মুহূর্তে মেজাজ হারিয়ে লাল-কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন তিনি৷ এর ফলে পরের চার ম্যাচ মাঠে নামতে পারবেন না মেসি৷ বার্সেলোনার কেরিয়ারে প্রথমবার৷ বার্সার হয়ে ৭৫৩টি ম্যাচ খেলেছেন আর্জেন্তাইন অধিনায়ক৷ কিন্তু এদিন ম্যাচের অন্তিমলগ্নে অ্যাটলেটিকে বিলবাওয়ের ডিফেন্ডারকে কড়া ট্যাকেল করেন মেসি৷ ভিডিওতে দেখা যায় বিলবাও ডিফেন্ডারের মাথায় কনুই দিয়ে ঠেলা মারেন তিনি৷

দু’ বছরের মধ্যে প্রথম খেতাব জয়ের খুব কাছে পৌঁছেছিল বার্সেলোনা৷ আক্রমণে আধিপত্য রেখেও হারতে বসেছিল অ্যাটলেটিক বিলবাও৷ ম্যাচ জুড়ে দুর্দান্ত খেলা বিলবাও খাদের কিনারা থেকে ঘুরে দাঁড়িয়ে সুপার কাপ জিতে নেয়৷ ম্যাচের অতিরিক্ত সময়ে উইলিয়ামসের চমৎকার গোলে সুপার উৎসবে মেতে ওঠে মার্সেলিনোর দল৷ তৃতীয়বারের জন্য সুপার কাপ জিতল দলটি৷

অঁতোয়ান গ্রিজমানের জোড়া গোলে দু’বার এগিয়ে গিয়েছিল বার্সেলোনা৷ প্রথমবার অস্কার দে মার্কোসের গোলে সমতায় ফেরার পর ৯০ মিনিটে আসিয়েরের গোলে খেতাবের লড়াইয়ে ফেরে বিলবাও৷ আর অতিরিক্ত সময়ে ইনাকির গোলে জয় নিশ্চিত করে মার্সেলিনোর দল৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।