বার্সোলোনা: সমর্থকদের কথায় মেসি ও বার্সা ‘একই বৃন্তে দু’টি কুসুম’!

আর্জেন্তাইন সুপারস্টার লিওনেল মেসির সঙ্গে স্প্যানিশ জায়ান্ট বার্সেলোনার চুক্তি রয়েছে ২০২১ পর্যন্ত। কিন্তু ক্লাব প্রেসিডেন্ট জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ’র কথায় মেসি চাইলে মরশুম শেষে বার্সা ছাড়তে পারেন৷ বার্সা প্রেসিডেন্টের এই বক্তব্যের পরই ফুটবলমহলে জল্পনা শুরু হয়ে যায়৷ তাহলে কি বার্সা’র সঙ্গে দীর্ঘ ১৫ বছরের সম্পর্ক শেষ হচ্ছে মেসি?

২০১৭-এর নভেম্বরে বার্সার সঙ্গে মেসি নতুন চুক্তি হওয়ার পর বার্সা সমর্থকরা হাঁফ ছেড়ে বেঁচেছিলেন। কিন্তু এখন তাঁরা ভাবতেই পারেন, বার্সার প্রতি মেসির ভালোবাসায় ‘শর্ত’ জড়িয়েছে৷

১৫ বছর আগে অর্থাৎ ২০০৪ সালে বার্সেলোনার সিনিয়র দলের হয়ে অভিষেক হয় মেসির। এরপর ২০০৫ তাঁর সঙ্গে চুক্তি করে ক্লাবটি। তবে আর্জেন্তাইন তারকা ফুটবলারের সঙ্গে বার্সার সর্বশেষ চুক্তি হয় ২০১৭-এর নভেম্বরে৷ ২০০৫-২০১৭ পর্যন্ত মোট আটবার মেসির সঙ্গে চুক্তি নবিকরণ করে লা-লিগার ২৬ বারের চ্যাম্পিয়ন ক্লাবটি। বার্সেলোনার হয়ে এখনও পর্যন্ত মোট ৬৮৭টি ম্যাচ খেলেছেন মেসি। গোল করেছেন ৬০৩টি। আর গোল করতে সহযোগিতা করেছেন ২৪২টি। বার্সেলোনা ফুটবল ক্লাবের ইতিহাসে সবচেয়ে বেশি ম্যাচ খেলার ক্ষেত্রে জাভির পরই রয়েছেন মেসি।

জানা গিয়েছে, চুক্তি অনুযায়ী মেসির বয়স যখন ৩২ পেরিয়ে যাবে, তখন তিনি ইচ্ছে করলে বার্সেলোনা ছেড়ে অন্য কোথাও চলে যেতে পারবে৷ এমনকি তিনি যদি কোনও নন-এলিট ক্লাবে যোগ দেন তাহলে ফ্রি-তেই ফুটবলের রাজপুত্রকে ছাড়তে পারে বার্সা৷ মেসির বয়স এখন ৩২৷ সুতরাং ২০২০ সালের জানুয়ারিতে বার্সেলোনা ছেড়ে অন্য কোনও ক্লাবে যোগ দিতে পারবেন তিনি।

পাঁচবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী মেসি ১৫ বছর ধরে একই দলে খেলে যে শুধু বার্সার ভরসা হয়ে উঠেছেন তাই নয়, তিনি দলের সেরা অস্ত্রও বটে। বার্সা প্রেসিডেন্ট মনে করেন, চুক্তি অনুযায়ী মেসি মুক্ত হলেও তাঁদের মধ্যে এতদিনের সম্পর্কের পারস্পরিক বিশ্বাসটাই আসল। তবে শুধু মেসি নয়, একইরকম চুক্তি করা হয়েছিল কিংবদন্তি জাভি, পুওল এবং ইনিয়েস্তার সঙ্গেও। তিনি বলেন, “এদের মতো বড় প্লেয়ারদের এই স্বাধীনতা থাকাই উচিত। যদিও আমাদের চিন্তার কারণ নেই। এরা বার্সার প্রতি যথেষ্ট দায়বদ্ধ। আমরা চাই মেসি ২০২১-এর পরেও বার্সার হয়েই খেলুক।’