করোনা ভাইরাস

কলকাতা: ফের করোনার থাবা টলিউডে। কিছুদিন আগে অভিনেত্রী মুনমুন সেন ও অভিনেতা আবির চট্টোপধ্যায়ের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর সামনে আসে৷ এবার এই ভাইরাসে আক্রান্ত হলেন বর্ষীয়ান অভিনেত্রী লিলি চক্রবর্তী৷

সম্প্রতি তাঁর করোনা পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসে৷ আপাতত বাড়িতেই রয়েছেন তিনি। জানা গিয়েছে, শনিবার সকালে জ্বর আসে ৭৯ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর৷ তারপরই তিনি করোনা পরীক্ষা করান৷ সম্প্রতি পরীক্ষার রিপোর্ট এসেছে৷ তথনই জানা যায় করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন অভিনেত্রী৷

চিকিৎসকের পরামর্শ নেন তিনি৷ তারপরই হোম আইসোলেশনে চলে যান অভিনেত্রী৷ এখন তিনি সম্পূর্ণভাবে ডাক্তারের পরামর্শ মেনে চলছেন৷ নিয়ম মেনে ওষুধ খাচ্ছেন৷ এখন আর তাঁর জ্বর নেই৷ শ্বাককষ্টজনিত কোনও সমস্যাও নেই৷ করোনার প্রভাব বাড়াবাড়ি রকম না হওয়ায় নার্সিংহোমে ভরতি হননি তিনি৷

তবে প্রয়োজনে যাতে নার্সিংহোমে ভর্তি হওয়া যায় তাই প্রাথমিকভাবে কথাবার্তা বলা রয়েছে৷ এর আগে টলিউডে একাধিক সেলিব্রিটি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন৷ তাঁদের মধ্যে ছিলেন কোয়েল মল্লিক, রঞ্জিৎ মল্লিক, রাজ চক্রবর্তী, সুদীপ্তা চক্রবর্তী, অপরাজিতা আঢ্য৷

প্রত্যেকেই বর্তমানে সুস্থ৷ কিছুদিন আগে মুনমুন সেনও এই মারণ ভাইরাসকে হারিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠেন৷ আবির চট্টোপাধ্যায় ডিসেম্বরের শেষের দিকে করোনায় আক্রান্ত হন৷

সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লিখেছিলেন, “অদ্ভুত ভাবে আমি সম্পূর্ণ সুস্থ৷ শুধু খাবারের স্বাদ পাচ্ছি না৷ নিজেকে পরিবারের থেকে আইসোলেট করে রেখেছি৷ পরিবারের সদস্যরাও খুব শীগগির টেস্ট করাবে৷ আমি শুধু এটাই প্রার্থনা করছি যে সকলে যেন সাবধানে থাকে৷ বিগত দিনে আমি যাদের সংস্পর্শে এসেছি তাদের অনুরোধ করছি টেস্ট করিয়ে নেওয়ার জন্য সাবধান থাকার জন্য৷ সকলের ভালোবাসা ও প্রার্থনার জন্য ধন্যবাদ৷”

এরপর আবিরের পরিবারের সদস্যরাও করোনায় আক্রান্ত হন৷ তবে তাঁরা সবাই আপাতত সের উঠেছেন বলে খবর৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।