ফাইল ছবি

ভুবনেশ্বর: দুর্গাপুজোর উৎসব মুখর পরিবেশ বদলে গেল বিষণ্ণতায়। প্রতিবেশী রাজ্যে বজ্রপাতে প্রাণ হারালেন ৫ জন। ওড়িশার ৩ জেলায় বজ্রপাতের জেরে মৃত্যু হয়েছে মোট ৫ জনের। ঘটনায় ৫ জনের মৃত্যুর পাশাপাশি আহত হয়েছেন আরও ৩ জন।

রবিবার অষ্টমীর দিন থেকেই বজ্রপাত সহ ঝড় বৃষ্টির পুর্বাভাস দিয়েছিল সে রাজ্যের হাওয়া অফিস। আশঙ্কা সত্যি করে একসময় শুরু হয় বৃষ্টি ও বজ্রপাত। ব্যাপক বজ্রপাতের কারণে মৃত্যু হয় ৫ জনের, পাশাপাশি আহত ৩ জনকে হাসপাতালে পাঠানো হয়।

আরও পড়ুন : নিখিলকে সঙ্গে নিয়ে অষ্টমীতে অঞ্জলি দিলেন নুসরত

রবিবারের পাশাপাশি আজ সোমবারও অবশ্য পরিস্থিতি সেই একই। আবহাওয়া দফতরের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, আজও বজ্রপাত সহ ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে শুধু প্রতিবেশী রাজ্য নয়, বৃষ্টির আশঙ্কা রয়েছে এ রাজ্যেও। অর্থাৎ কপাল খারাপ হলে নবমীর রাতেও প্যান্ডেল হপিং-এ গিয়ে বিপাকে পড়তে পারেন সাধারণ মানুষ।

শুধু তাই নয় আবহাওয়াবিদদের আশঙ্কা, দশমী ও একাদশীর দিনও কলকাতার রাস্তা ভেজাতে পারে বৃষ্টি। আর তারফলে পুজোপ্রেমী বাঙালিরা যে মুশকিলে পড়বে তা বলাই বাহুল্য। তবে অল্প একটু মুশকিলে পড়লেও তাকে পাত্তা দিতে নারাজ কলকাতাবাসীরা। সন্ধ্যের আগে থেকেই রাস্তায় ঠাকুর দেখার ঢল নামছে সাধারণ মানুষের। বৃষ্টিকে ‘থোড়াই কেয়ার’ বলে রাস্তায় প্যান্ডেল হপিংয়ে বেরোচ্ছেন সাধারণ মানুষ।

আরও পড়ুন : পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হিসেবে তৈরি ভুয়ো পাসপোর্ট, বিমানবন্দরে গ্রেফতার বাংলাদেশি

আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, ওড়িশার উপর একটি ঘূর্ণাবর্ত থাকার কারনেই এই বৃষ্টি বিপাকে রাজ্যবাসী। তবে শুধু কলকাতা নয়, কলকাতার পাশাপাশি মুর্শিদাবাদ, বর্ধমান, দুই ২৪ পরগণা, নদিয়া জেলার আকাশেও থাকছে এই বৃষ্টির আশঙ্কা। এরাজ্যে উত্তরবঙ্গ থেকে ওড়িশার ঘূর্নাবর্ত পর্যন্ত একটি নিম্নচাপ বিস্তৃত রয়েছে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.