নয়াদিল্লি: রাজধানীতে JEE ও NEET পরীক্ষা স্থগিতের প্রস্তাব নাকচ করে দিলেন দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বৈজাল। করোনা আবহে JEE ও NEET পরীক্ষা স্থগিত রাখার আবেদন জানিয়ে লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বৈজালের কাছে প্রস্তাব পাঠায় দিল্লি সরকার। অরবিন্দ কেজরিওয়াল সরকারের সেই প্রস্তাবে সাড়া দিলেন না লেফটেন্যান্ট গভর্নর।

করোনা আবহে JEE ও NEET পরীক্ষা স্থগিত করে দেওয়ার আবেদন দেশের একাধিক রাজ্যের। পশ্চিমবঙ্গ-সহ বিজেপি বিরোধী ৬ রাজ্য করোনা আবহে JEE ও NEET পিছনোর দাবিতে সুপ্রিম কোর্টেও আবেদন করেছে। এবার সেই একই পথে হেঁটে পড়ুয়াদের সুরক্ষার কথা ভেবে দিল্লিতে করোনা আবহে JEE ও NEET পরীক্ষা স্থগিত করে দেওয়ার আবেদন করে অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সরকার।

লেফটেন্যান্ট গভর্নর অনিল বৈজালকে দিল্লিতে JEE ও NEET পরীক্ষা স্থগিত রাখার আবেদন জানিয়ে একটি প্রস্তাব পাঠানো হয় দিল্লির সরকারের তরফে।

তবে কেজরিওয়াল সরকারের সেই প্রস্তাব সরাসরি নাকচ করে দিয়েছেন দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নর। করোনা আবহে JEE ও NEET ইস্যুতে আগেই কেন্দ্রকে তুলোধনা করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুরু থেকেই করোনা পরিস্থিতিতে JEE ও NEET পিছনোর আবেদন জানিয়ে আসছেন তৃণমূলনেত্রী। পড়ুয়াদের সুরক্ষার স্বার্থেই JEE ও NEET পিছনোর দাবিতে সরব হয়েছে পশ্চিমবঙ্গ-সহ মোট ৬টি রাজ্য।

করোনা আবহে JEE ও NEET পরীক্ষা আয়োজনের জেরে কেন্দ্রের কড়া সমালোচনা করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘‘গায়ের জোরে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। আইআইটিগুলিতে পরীক্ষা নেওয়া না হলেও NEET, JEE নেওয়ার কথা বলছে। পড়ুয়াদের ওপর চাপ দিচ্ছে। পড়ুয়ারা মানসিক দুশ্চিন্তায় আছে। পরীক্ষা নিয়ে চিন্তিত অভিভাবকরাও। কেন্দ্র পড়ুয়াদের কেন বিপদে ফেলছে?’’

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।