কলকাতা: জীবন বিমা নিগম (এলআইসি)-র শেয়ার বিক্রি করবে মোদী সরকার৷ তারই প্রতিবাদে সোমবার পথে নামেন এলআইসি-র কর্মচারীরা৷ অন্যদিকে আগামীকাল মঙ্গলবার সারা দেশ জুড়ে এক ঘন্টা কাজ বন্ধ রেখে প্রতিবাদ জানাবে তারা৷

সোমবার দুপুরে কলকাতার চাঁদনি চকের কাছে এলআইসি ভবনের সামনে জমায়েত হন এলআইসি-র কর্মচারীরা৷ এরপর তারা সেখানে কেন্দ্রীয় সরকারের শেয়ার বিক্রির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ দেখান৷ আন্দোলনকারীদের দাবি, দেশে বিভিন্ন সংস্থা যখন লোকসানে চলছে৷ তখন লাভে চলা এলআইসির শেয়ার বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে মোদী সরকার৷ তারফলে লাভে চলা এলআইসি-র ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্ন চিহ্ন দেখা দিয়েছে৷

অল ইন্ডিয়া ইনসিওরেন্স এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম সম্পাদক জয়ন্ত মুখোপাধ্যায় জানান, সরকারের এলআইসি-র শেয়ার বিক্রি প্রতিবাদে আগামিকাল মঙ্গলবার এক ঘণ্টা কাজ বন্ধ রেখে প্রতিবাদে শামিল হবেন গোটা দেশের এলআইসি কর্মচারীরা৷

বাজেটে জীবনবিমা নিগম এলআইসি-র অংশীদারিত্ব বিক্রির কথা ঘোষণা করেছেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন। বাজেটে এহেন ঘোষণা পর থেকেই তীব্র আতঙ্ক তৈরি হয়েছে এজেন্ট এবং আমানতকারীদের মধ্যে৷ এবারের বাজেটে বলা হয়েছে, জীবনবীমায় থাকা ভারত সরকারের শেয়ার বিক্রি করা হবে আইপিওর মাধ্যমে৷

একদিকে যখন বিক্ষোভে সামিল হচ্ছেন এলআইসি’র কর্মচারীরা, অন্যদিকে তখন কলকাতায় এলআইসি অফিসে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন যুব কংগ্রেসের সদস্যরা৷ সোমবার সকাল থেকে কলকাতায় জীবনবিমা সংস্থার দফতরের গেট আটকে বিক্ষোভ দেখান কংগ্রেস নেতা-কর্মীরা৷

এই মুহূর্তে এই জীবনবিমা নিগমের গ্রাহক সংখ্যা ৩২ কোটি। বিক্ষোভকারীরে জানাচ্ছেন, এত বছর ধরে গ্রাহকদের বিশ্বাস অর্জন করে চলা জীবনবিমা নিগমেরও বিলগ্নিকরনের তীব্র বিরোধিতা করছেন তারা৷ সরকারের এই সিদ্ধান্তে গ্রাহকরাও সন্দেহ প্রকাশ করছেন। তাঁদের দাবি, তাঁদের টাকা এই বিলগ্নিকরনের পরেও সুরক্ষিত থাকবে কি না।

দেশের অর্থনীতি নিম্নগামী থাকায়, এবারের বাজেটে নজর ছিল সকলেরই। কিন্তু বাজেট পেশ হতে বিরোধীদের মধ্যে অসন্তোষ বেড়েছে। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বাজেট ২০২০-র তীব্র সমালোচনা করেছেন।

বাজেট পেশের দিনই তিনি টুইট করেছিলেন, ঐতিহ্যের সরকারি প্রতিষ্ঠানে আক্রমণ করার পরিকল্পনা করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। এতে ক্রমশ নিরাপত্তা কমছে বলে মনে করছেন তিনি। তার প্রশ্ন এভাবেই কি একটা যুগ শেষ হয়ে যাবে?