দেবময় ঘোষ, কলকাতা: নরেন্দ্র মোদীকে বছরে দু’বার কুর্তা পাঠান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ মিষ্টিও পাঠান৷ এই খবর জানার পর প্রদেশ কংগ্রেস এবং বামফ্রন্ট নেতৃত্বে ‘মোদীভাই-দিদিভাই’তত্ত্ব হাজির করেছে৷ প্রদেশ সভাপতি সোমেন মিত্র বুধবার বলেন, মোদী এবং দিদি গোপনে হাত মিলিয়ে চলেন তা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে৷ গুজরাটের দাঙ্গার পর মোদীকে লাল গোলাপ পাঠিয়েছিল মমতা৷

এবারেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একবারের জন্য বলেনি, নির্বাচনের পর এনডিএ’কে সমর্থন করবে না৷ অন্যদিকে সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র জানান, দিদি কুর্তা, মিষ্টি পাঠান মোদীকে৷ বিষয়টা জলের মতো পরিষ্কার হয়ে গিয়েছে৷ কার সঙ্গে কে হাত মিলিয়েছে তা বোঝা গিয়েছে৷

ভোটের বাজারে ‘মোদীভাই-দিদিভাই’বিতর্ক নতুন করে শুরু হয়েছে বলিউড তারকা অক্ষয় কুমারকে দেওয়া নরেন্দ্র মোদীর একটি সাক্ষাৎকারকে কেন্দ্র করেই৷ ওই সাক্ষাৎকার প্রকাশিত হতেই প্রদেশ কংগ্রেস এবং সিপিএম বিজেপির বিরুদ্ধে প্রচার জোরদার করেছে৷ তবে বলার বিষয় এই যে, টুইট করে মোদীর বক্তব্যকে সমর্থন করেছে বিজেপিও৷

রাজ্য থেকে বিজেপির জাতীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা বলেন, ‘‘রাজনৈতিক সম্পর্ক এক জায়গায়৷ ব্যক্তিগত সম্পর্ক অন্য জায়গায়৷ কোনও নেতা কী বলেছেন সেই বিষয়ে আমি জানি না৷ তবে একথা বলতে পারি, সৌজন্যের রাজনৈতিক সংস্কৃতি এরাজ্যে নেই৷ দিল্লিতে দেখেছি৷ বিজেপি নেতার বাড়িতে কিছু হলে বিরোধীরাও ছুটে আসেন৷’’ রাহুল আরও বলেন, ‘‘রাজ্য বিজেপির কর্মী সমর্থকরা আমার জন্মদিন পালন করে৷ সেখানে সব রাজনৈতিক দলের সদস্যরা আমন্ত্রিত থাকেন৷’’

অক্ষয় কুমারকে সাক্ষাৎকারে মোদী বলেছেন, বহু বিরোধী দলের নেতাদের সঙ্গে সুসম্পর্ক রয়েছে৷ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে পছন্দ করে বছরে দু’বার তাকে কুর্তা পাঠান৷ বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মোদীকে বাংলার নতুন মিষ্টি পাঠান৷ মোদী সাক্ষাৎকারে জানিয়েছেন, ওই খবর পাওয়ার পর ‘মমতা দিদি’ও তাকে মিষ্টি পাঠিয়েছিলেন৷ প্রসঙ্গত, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বুধবার এক নির্বাচনী জনসভায় বলেছেন, মিষ্টি খাওয়ান, চা খাওয়ান কিন্তু বিজেপি ভোট দেবেন না৷