বার্সেলোনা: ফের স্কোরের খাতায় নাম তুললেন দলের মধ্যমনি লিওনেল মেসি। কিন্তু দলকে জয় এনে দিতে ব্যর্থ আর্জেন্তাইন। দ্বিতীয়ার্ধে প্রতিপক্ষের মাত্র সাত মিনিটের ঝড়ে ফালা-ফালা হয়ে গেল বার্সেলোনা রক্ষণ। অ্যাওয়ে ম্যাচে শনিবার লেভান্তের কাছে ১-৩ গোলে হারল বার্সেলোনা।

সবধরনের প্রতিযোগীতা মিলিয়ে টানা সাত ম্যাচ জয়ের পর পরিষ্কার ফেভারিট হয়েই এদিন লেভান্তের বিরুদ্ধে মাঠে নেমেছিল কাতালান ক্লাবটি। প্রথমার্ধে এক গোলে এগিয়েও যায় তাঁরা। গোলদাতা চোট সারিয়ে ফিরেই ফর্মের শীর্ষে বিরাজ করা লিও মেসি। ৩৮ মিনিটে পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন আর্জেন্তাইন সুপারস্টার। একইসঙ্গে কেরিয়ারে বাঁ-পায়ে ৫০০তম গোল সম্পূর্ণ করেন বার্সার মধ্যমনি। এর আগে মেসিরই থ্রু বল ধরে গোলের খুব কাছে পৌঁছে গিয়েছিলেন গ্রিজম্যান। কিন্তু দুরন্ত দক্ষতায় সেযাত্রায় দলকে রক্ষা করেন লেভান্তে দুর্গের শেষ প্রহরী। মেসির গোলের পর মনে করা হচ্ছিল ভালভের্দের দলের জন্য ফের তিন পয়েন্ট কেবল সময়ের অপেক্ষা।

কিন্তু ম্যাচে এগিয়ে যাওয়ার মাত্র তিন মিনিট বাদে কাফ মাসলে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন লুইস সুয়ারেজ। যা উদ্বেগ তৈরি করে বার্সেলোনা শিবিরে। যা রিপোর্ট তাতে আগামী সপ্তাহে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ম্যাচেও মাঠে নামা অনিশ্চিত ঊরুগুয়ে স্ট্রাইকারের। প্রথমার্ধে এক গোলে এগিয়ে থেকেই লকাররুমে যান মেসিরা। ম্যাচের প্রথম ৬০ মিনিট গোল লক্ষ্য করে একটিও শট না নেওয়া লেভান্তে ম্যাচে সমতা ফেরায় ৬১ মিনিটে। জেরার্ড পিকে’র দুর্বল ক্লিয়ারেন্স ধরে প্রথম গোলের জন্য জোস ক্যাম্পানার জন্য বল সাজিয়ে দেন মায়োরাল-মোরালেস জুটি। আর ঠিকানা লেখা বল ধরে বার্সা গোলরক্ষক টার স্টিগেনকে পরাস্ত করতে কোনও ভুল করেননি ক্যাম্পানা।

দু’মিনিট বাদে ফের গোল। এক্ষেত্রে ক্যাম্পানার পাস থেকে বল ধরে ২০ গজ দূর থেকে মায়োরালের নেওয়া বাঁক খাওয়ানো শট স্টিগেনের নাগাল এড়িয়ে জড়িয়ে যায় জালে। ৬৮ মিনিটে বার্সা রক্ষণে তৃতীয় পেরেকটি পোঁতেন নেমাঞ্জা রাদোজা। ক্লিমেন্ট লেংলেটের ক্লিয়ার করা বল ধরে ১৮ গজ দূর থেকে শট নেন রাদোজা। পরিবর্ত সার্জিও বুসকেটসের গায়ে লেগে প্রতিহত হয়ে বল খুঁজে নেয় গোলের ঠিকানা।

৩-১ গোলে পিছিয়ে পড়ে গোলের লক্ষ্যে আনসু ফাতিকে নামিয়েও লাভের লাভ কিছু হয়নি। ভিএআরের সাহায্য নিয়ে মেসির একটি গোল অফসাইডের কারণে বাতিল করেন রেফারি। বার্সার ম্যাচে ফেরার রাস্তা বন্ধ হয়ে যায় ওখানেই। বার্সেলোনা ম্যাচ হারায় রিয়াল মাদ্রিদের কাছে সুযোগ ছিল লিগ টেবিলে শীর্ষে উঠে আসার। কিন্তু রিয়াল বেটিসের বিরুদ্ধে গোলশূন্য শেষ করে সেই সুযোগ এদিন হাতছাড়া করে জিদানের ছেলেরা। অর্থাৎ, হেরেও ১১ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই রইল বার্সেলোনা। সমসংখ্যক ম্যাচে সমান পয়েন্ট নিয়ে গোলপার্থক্যে দ্বিতীয়স্থানে রিয়াল মাদ্রিদ।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও