কলকাতা: পুজোর আগেই বাংলায় লোকাল ট্রেন চালুর দাবিতে রেলমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন বিজেপি সাংসদ স্বপন দাশগুপ্ত৷

সোমবার রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েলকে পাঠানো চিঠিতে স্বপনবাবু লিখেছেন, ‘‌মার্চে লকডাউনের শুরু থেকে পশ্চিমবঙ্গে লোকাল ট্রেন বন্ধ রয়েছে৷ লোকাল ট্রেন বন্ধ হওয়ায় সমস্যায় সাধারণ মানুষ৷ জীবন ও জীবিকার প্রয়োজনে বাংলার বেশিরভাগ মানুষের ভরসা এই লোকাল ট্রেন৷ দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ থাকায় পেটে টান ধরেছে সাধারণ মানুষের৷ ফলে বেশি ভাড়া দিয়ে ভিড় বাসে উঠতে বাধ্য হচ্ছেন অনেকেই৷

সম্প্রতি স্পেশ্যাল ট্রেনে চড়ার দাবিতে বিভিন্ন স্টেশনে রেল অবরোধ করেন যাত্রীরা৷ যেমন সোনারপুর স্টেশনে একটি স্পেশাল ট্রেন দাঁড়ালে,তাতে ওঠার চেষ্টা করেন কিছু যাত্রী৷ আর সেই সময়ে তাদের বাধা দেওয়া হলে রেল পুলিশের সঙ্গে হাতাহাতি বেধে যায়৷ অভিযোগ, রেল পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটও ছোঁড়া হয়। দাঁড়িয়ে থাকা ট্রেনে চলে ব্যাপক ভাঙচুর। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠি চালাতে হয় পুলিশকে৷

অদিকে আগামী ১৫ অক্টোবর থেকে মুম্বইয়ের শহরতলিতে পুরোদমে রেল পরিষেবা চালু করা হচ্ছে বলে খবর৷ বিজেপি সাংসদ সেই কথা উল্লেখ করে রেলমন্ত্রীর কাছে দুর্গাপুজোর আগে লোকল ট্রেন পরিষেবা চালু করার জন্য আবেদন করেন৷

এখন দেখার বিষয় বাংলায় লোকাল ট্রেন নিয় কী সিদ্ধান্ত নেয় রেল দফতর৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

জীবে প্রেম কি আদৌ থাকছে? কথা বলবেন বন্যপ্রাণ বিশেষজ্ঞ অর্ক সরকার I।