পুজোয় নাইট আউট না হলে কি এনজয় সম্পূর্ণ হয়? সে বাড়ির বড়রা একটু আধটু নাক কুঁচকালেও, বন্ধুদের সঙ্গে বা বাড়ির সমবয়েসীদের সঙ্গে প্রতিবছরই নাইট আউটের প্ল্যান রেডি থাকে মোটামুটি সব্বারই৷ আর তার সাথে চলে মুখও৷ মানে ডানহাতের কাজ৷ টিপিক্যাল ডিনার নয়, অনেকেই ভালবাসেন, কলকাতার রাস্তায় ঘুরে ঘুরে খেতে৷ মানে টুকটাক মুখ চলতে চলতেই পেটটা ভরে যায়, আর মনের কথা তো ছেড়েই দিলাম৷ কলকাতার স্ট্রিট ফুডে মন ভরে না, এমন মানুষ ঠিক দেখা যায় না৷

তাই এবার সপ্তমী হোক বা নবমীর রাত৷ কলকাতার ভীড়ে পা মেলালে এই খাবারগুলো অবশ্যউ চেখে দেখবেন৷ রইল সেই তালিকা৷

১. ফুচকা: দেখুন! গোল গাপ্পা বলুন আর পানিপুরি৷ কলকাতার ফুচকাকে টেক্কা দেবে এমন বান্দা তৈরি হয়নি এখনও৷ টক জলের সঙ্গে আলুমাখার ডেডলি কম্বো তৈরি করতে একমাত্র কলকাতাই পারে৷ তাই নাইট আউটে বেরিয়ে টপাটপ মুখে পুরে ফেলুন ফুচকা৷ তবে হ্যাঁ, ফুচকাওয়ালার সামনে লাইনে দাঁড়ানোর ধৈর্য্যটা রাখবেন প্লিজ৷

২. রোল: হ্যাঁ মশাই৷ কলকাতার রোলের নাম কে না জানে৷ কি রোল খাবেন বলুন? না না, কোনও বড় দোকানে ঢুঁ মারার দরকারই নেই৷ যে কোনও গুমটি দোকানে দাঁড়িয়ে পড়ুন৷ সবরকম অপশন নিয়ে হাজির কলকাতার রোলের দোকানগুলি৷ এগ রোল, চিকেন রোল, মাটন রোল, ভেজ রোল, পনির রোল, কাবাব রোল, ফিশ রোল, আরো কত কি৷ তবে নিউ মার্কেটের নিজাম, বাদশাহ, এবং পার্ক স্ট্রিটের কুসুম এবং হট কাঠি রোলের নামটা মাথায় রাখতে পারেন৷

৩. ঝালমুড়ি বা ভেলপুরি: লাল লাল চাটনি, সঙ্গে ধনেপাতা আর সেউভাজা দিয়ে চটপটি করে মাখা ভেলপুরি৷ বাদ দিতে পারবেন বলুন? নাইট আউটে একটা ভেলপুরি বা ঝালমুড়ি মাস্ট৷ মুড়ি, নিমকি, বাদাম, ধনেপাতা, পেঁয়াজ, মরিচ, টমেটো, মসলা… সব মিলিয়ে জমে ক্ষীর নাইট আউটের প্ল্যান৷

৪. আলু কাবলি:  ছোটবেলার কথা মনে পড়ছে? স্কুলের বাইরে সেই কাকুটা দাঁড়িয়ে থাকত আলুকাবলি মাখা নিয়ে? হ্যাঁ আলুকাবলির সঙ্গে আমাদের সবার ছোটবেলা জড়িয়ে রয়েছে৷ এবার পুজোর নাইট আউটে সঙ্গে থাকুক একটুকরো ছোটবেলা৷ মুখে দিয়ে টকটক ঝাল ঝাল আলুকাবলি ফিরিয়ে দেবে কলকাতার পুজোর আসল স্বাদ৷

 

৫. মিষ্টি: সারা বছর ডায়েট করেন, খুব বুঝে শুনে খান৷ বুঝলাম, মানলামও৷ তবে পুজোয় বেরিয়ে ভালো মন্দ খেয়ে একটু মিষ্টিমুখ করবেন না? পাপ হবে যে! অল্প হলেও, একটু মিষ্টি চাখুন৷ সে যে রকমই হোক না কেন৷ শুকনো সন্দেশ থেকে রসে ভরা রসগোল্লা৷ পুজোয় খাওয়া দাওয়ার বৃত্ত সম্পূর্ণ করে এই মিষ্টি৷ তাই চোখ বুঝে খেয়ে ফেলুন৷ সত্যি বলছি৷ ওজন মেশিন ধরতেও পারবে না৷