স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আশার বাণী দিতে পারছে না আলিপুর আবহাওয়া দফতর। তবে আশঙ্কার বাণী রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের দুই প্রান্তের জন্যই৷ একদিকে কম বৃষ্টিতে জারি থাকবে গরম, আবার পাহাড়ে অতি বৃষ্টিতে বানভাসি হওয়ার সম্ভাবনা বেশি।

দুর্বল মৌসুমী বায়ু, ফলে বর্ষা এসেও কোনও লাভ হচ্ছে না দক্ষিণবঙ্গের। মাঝে মাঝে বৃষ্টি হচ্ছে কিন্তু গরমই বেশি সময় নাজেহাল করছে। মঙ্গলবার বাড়বে দক্ষিণবঙ্গের তাপমাত্রা। সেই সঙ্গে বজায় থাকবে আর্দ্রতাজনিত অস্বস্তি। দক্ষিণবঙ্গের সব জেলাতেই একই পরিস্থিতি।

আরও পড়ুন: গুজরাতের রাজ্যসভা ভোটে বিজেপি প্রার্থী বিদেশমন্ত্রী জয়শঙ্কর

কলকাতার তাপমাত্রাও বাড়ছে মঙ্গলবার শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ২৮.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস, যা স্বাভাবিকের থেকে দুই ডিগ্রি বেশি। বাতাসে আপেক্ষিক আর্দ্রতার পরিমাণ সর্বোচ্চ ৯১ শতাংশ সর্বনিম্ন ৫৮ শতাংশ। ছিটেফোঁটা বৃষ্টি হয়েছে গত ২৪ ঘণ্টায়। তবে পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে হাল্কা বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে। পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলির কোনও কোনও জায়গায় বজ্রবিদ্যুৎ-সহ বৃষ্টির পূর্বাভাস দেওয়া হয়েছে।

হাওয়া অফিস জানাচ্ছে , আজ মঙ্গলবার ২৫ ও ও বুধবার ২৬ জুন উত্তরবঙ্গে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।সিকিমের ক্ষেত্রেও এই সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে। ফলে দুর্যোগ আসন্ন উত্তরবঙ্গে।

আরও পড়ুন: ইরানকে ঠেকাতে অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা জারি আমেরিকার

এখনও উত্তরবঙ্গে অতি বৃষ্টি শুরু হয়নি, তার আগেই সিকিমের বৃষ্টিতে ভাসতে বসেছে উত্তরবঙ্গের বিস্তীর্ণ অঞ্চল। প্রবল বৃষ্টির ফলে পাহাড়ে ধস নামতে শুরু করেছে। পাহাড়ি নদীগুলোজলে পরিপূর্ণ। হরপা বান আসছে। ফলে বন্যার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে কোনও কোনও জেলায়। প্রশাসনের তরফে সমস্তরকম সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে।

এবার বর্ষা আসতে অনেক দেরি হয়ে গিয়েছে উত্তরবঙ্গে। দক্ষিণবঙ্গেও স্বাভাবিকভাবেই দেরী হয়েছে বর্ষা আসতে। সাধারণত উত্তরবঙ্গকে ক-দিন ভাসিয়ে দক্ষিণবঙ্গে আসে বর্ষা, কিন্তু এমন অতিবৃষ্টি এবং কম বৃষ্টিতে বাংলার দুই প্রান্তে আশঙ্কার মেঘ খুব কম সময়েই তৈরী হয়েছে।