বেঙ্গালুরু: দীর্ঘ লড়াইয়ের পর চলে গেলেন প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পী এসপি বালাসুব্রহ্মণ্যম।

শুক্রবার হাসপাতালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭৪ বছর।

অগস্টের প্রথম সপ্তাহে করোনা আক্রান্ত হন প্রথিতযশা এই সঙ্গীতশিল্পী। তাঁকে হোম আইসোলেশনে থাকতে বলা হলেও তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করেন তাঁর পরিবারের সদস্যরা। গত ২৩ সেপ্টেম্বর তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হয়।

শুক্রবার তাঁর শিল্পীর ছেলে এসপি চরণ বাবার মৃত্যুর খবর ঘোষণা করেন। এদিন দুপুর ১ টা ৪ মিনিটে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি।

পরিবারে রইলেন তাঁর স্ত্রী সাবিত্রী ও দুই সন্তান পল্লবী ও এসপি চরণ। চরণই তাঁর শেষকৃত্য সারবেন।

১৩ অগস্ট পর্যন্ত সুস্থ ছিলেন সুব্রহ্মণ্যম। পরে তাঁর অবস্থার অবনতি হলে তাঁকে ভেন্টিলেটরে দেওয়া হয়। এক মাসের বেশি সময় তিনি ভেন্টিলেটর সাপোর্টে ছিলেন। ১৩ সেপ্টেম্বর করোনা মুক্ত হন তিনি।

তাঁর মৃত্যুতে দক্ষিণের ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে শোকের ছায়া। শোকস্তব্ধ শিল্পী মহল।

শুধু সঙ্গীতশিল্পীই নন, অভিনেতা, সঙ্গীত পরিচালক হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি। পাঁচ দশক ধরে বিভিন্ন ভাষায় অন্তত ৪০,০০০ গান গেয়েছেন তিনি।

জীবনে বহু পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি। সবথেকে বেশি সংখ্যাক গান গাওয়ায় গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড ছিল তাঁর। সেরা সঙ্গীতশিল্পী হিসেবে ৬ বার জাতীয় পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। তেলেগু সিনেমার নন্দী অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন ২৫ বার।

২০০১ সালে পদ্মশ্রী ও ২০১১-তে পদ্মভূষণ করেছেন তিনি।

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।