স্টাফ রিপোর্টার , হাওড়া : উলুবেড়িয়া-১ ব্লকে আমফান নিয়ে বেশ কয়েকদিন আগেই দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছিল। এবার সেই দুর্নীতির উপযুক্ত তদন্ত চেয়ে উলুবেড়িয়ায় পথে নামল বাম কর্মী-সমর্থকরা। আমফানে ক্ষতিপূরণ সংক্রান্ত দুর্নীতির বিরুদ্ধে সঠিক তদন্ত এবং প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণের দাবিতে উলুবেড়িয়া-১ ব্লকে ডেপুটেশন জমা দেয় স্থানীয় বাম নেতৃত্ব।সেই ডেপুটেশন কর্মসূচিতে অংশ নেন কয়েক হাজার বাম কর্মী-সমর্থক।

উলুবেড়িয়া-১ ব্লকের বিভিন্ন প্রান্তের প্রায় আড়াই হাজার বাম কর্মী সমর্থক উলুবেড়িয়া গরুহাটায় দলীয় কার্যালয়ের সামনে হাজির হয়।সেখান থেকে মিছিল করে তারা উলুবেড়িয়া ১ নং ব্লক অফিসে যায়।সেখানে উপস্থিত উলুবেড়িয়া থানার পুলিশ প্রথমে তাদের অফিসের গেটে আটকে দেয়।পরে গেট খুলে দেওয়া হলে তারা ভিতরে প্রবেশ করে।সেখানে বিক্ষোভ দেখানোর পর তারা বি ডি ও অফিসে ডেপুটেশন জমা দেয়। বামেদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে আম্ফানের ক্ষতিগ্রস্তদের তালিকায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে লাগাতার আন্দোলন চলবে।

সম্প্রতি আমফান দুর্নীতি এবং অনিয়মের অভিযোগে নন্দীগ্রামের এক পঞ্চায়েত প্রধান-সহ ২৫ জন স্থানীয় তৃণমূল নেতাকে সাসপেন্ড করল শাসকদল। জেলা জুড়ে উম্পুনের ক্ষতিপূরণ বিলিতে নন্দীগ্রাম-সহ বিভিন্ন এলাকার বেশ কিছু স্থানীয় তৃণমূল নেতা-কর্মীর বিরুদ্ধে স্বজনপোষণ ও অনিয়মের অভিযোগ ওঠার পর কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। কয়েক দিন আগে শুধু নন্দীগ্রামেরই ২০০ তৃণমূল নেতা-কর্মীকে শো-কজ নোটিস ধরানো হয়েছিল। সোমবার সমস্ত শো-কজের উত্তর আসার পর নন্দীগ্রামের ১ পঞ্চায়েত প্রধান এবং ২৫ জন স্থানীয় তৃণমূল নেতাকে অনির্দিষ্ট সময়ের জন্যে দল থেকে সাসপেন্ডের কথা ঘোষণা করা হয়। দলীয় সূত্রে খবর, নন্দীগ্রামের পাশাপাশি ময়না ও মহিষাদলেরও কয়েকজন তৃণমূল নেতা টাকা ফেরত দিয়েছেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ