স্টাফ রিপোর্টার, জলপাইগুড়ি : শিয়রে বিধানসভা নির্বাচন। তার আগে বামপন্থী গণসংগঠন সমূহের ডাকে জলপাইগুড়ি শহরে বাইক মিছিল।

আগামী ২৬ নভেম্বর সাধারণ ধর্মঘটকে সফল করার লক্ষ্যে ধর্মঘটের দাবি সনদ ফ্লেক্সে সাজিয়ে ট্যাবলো নিয়ে শহরের প্রতিটি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে বাইক মিছিল সংঘটিত হয় বুধবার।

এদিন কদমতলা মোরে এই বাইক রেলির উদ্বোধন করেন কৃষক আন্দোলনের নেতা সিপিআইএম জলপাইগুড়ি জেলা সম্পাদক সলিল আচার্য। বুধবার শহরের মাদ্রাসা ময়দান থেকে শতাধিক বাম সমর্থকের এই বাইক মিছিল শুরু করেন। এরপর শহরের প্রতিটি ওয়ার্ড হয়ে সিআইটিইউ জেলা দফতর ডি.বি.সি. রোডে এসে শেষ হয় বামেদের এই মিছিল।

মিছিল শেষে অভিনন্দন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন পশ্চিমবঙ্গ বস্তি উন্নয়ন সমিতির নেতা ও পার্টির এরিয়া কমিটির সম্পাদক বিপুল সান্যাল।

সুলিল আচার্য জানান, উৎসবের মরসুম চলছে এর মাঝেও বামপন্থীরা শারদ উৎসবের আগের থেকেই আগামী ২৬ নভেম্বর কেন্দ্রীয় ট্রেড ইউনিয়ন ও ফেডারেশন সমূহের সাত দফা দাবির ভিত্তিতে ডাকা সাধারণ ধর্মঘটের সমর্থনে প্রচার করে চলছে। কেন্দ্রীয় সরকারের দেশ বিক্রির চক্রান্তের বিরুদ্ধে,১০০ দিনের কাজকে ২০০ দিন করে অবিলম্বে শহরে চালু করার দাবিতে, আয়কর না পাওয়া সমস্ত পরিবারকে মাসিক সাড়ে সাত হাজার টাকা ও মাথাপিছু ১০ কেজি খাদ্যশস্য দেওয়ার দাবি সহ যে ৭ দফা দাবিতে এই ধর্মঘট ডাকা হয়েছে সেই দাবিগুলো মানুষের দাবি।

তিনি আরও বলেন, “আমরা বিশ্বাস করি মানুষ সর্বতোভাবে জনস্বার্থ বিরোধী কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে আগামী ২৬ নভেম্বর সাধারণ ধর্মঘটকে সর্বাত্তক সফল করে তুলবেন। আমরা অন্যান্য ধর্মঘটের মধ্যে দেখেছি পুলিশ দিয়ে আমাদের ব্যারিকেড করার চেষ্টা হয়। এবছর বন্ধের বিরোধিতায় রাজ্য সরকারের পুলিশ পথে নামলে বন্ধ সমর্থকরা তাদের ব্যারিকেড করবেন। জলপাইগুড়ি জেলা জুড়ে আমাদের এই প্রচার চলছে আগামী সাত দিন আরও বহু মানুষ ২৬ নভেম্বর এর সাধারণ ধর্মঘটকে সফল করতে পথে নামবেন।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।