স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: এখনও জ্বলছে বাগরি৷ আগুন লাগার পর প্রায় ৪৮ ঘণ্টা কেটে গেলেও বাগ মানেনি বাগরি মার্কেটের আগুন৷ এদিক ওদিক থেকে উঁকি দিচ্ছে লেলিহান শিখা৷ কলকাতার বুকে ভয়াবহ এই অগ্নিকাণ্ড রাতের ঘুম কেড়েছে বহু ব্যবসায়ীর৷ পরিস্থিতি দেখতে মঙ্গলবার বাম কাউন্সিলরদের এক প্রতিনিধি দল যাচ্ছে ঘটনাস্থলে৷

আরও পড়ুন: বাগরি মার্কেটের মালিকরা কোথায়? দুদিনের মধ্যে খুঁজে বার করতে বলল নবান্ন

কর্পোরেশন অফিস থেকে বেলা তিনটে নাগাদ বাম কাউন্সিলরদের ওই দল বাগরি মার্কেট চত্বরে যাবেন৷ তিনদিন পর কী অবস্থায় রয়েছে এই মার্কেটচত্বর তা ঘুরে দেখবেন তাঁরা৷ সোমবারও ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ সেখান থেকেই শোভন জানান, প্রশাসনিক কাজে বিদেশে রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ কিন্তু বাগরি নিয়ে প্রতিটা মুহূর্তের খবর তিনি নিচ্ছেন৷ সেখান থেকেই প্রয়োজনীয় নির্দেশ পাঠাচ্ছেন৷

আরও পড়ুন: বিদেশ থেকেই সব নির্দেশ দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী : শোভন চট্টোপাধ্যায়

পুজোর মুখে মহানগরের বুকে এতবড় অগ্নিকাণ্ডে মাথায় হাত ব্যবসায়ীদের৷ কয়েক কোটি টাকার ক্ষতির মুখে পড়তে হবে তাঁদের৷ ফের কবে ঘুরে দাঁড়াতে পারবে বাগরি তা নিয়েও যথেষ্ট ধোঁয়াশা রয়েছে৷ ইতিমধ্যেই এই বাগরি মার্কেটের আগুন নিয়ে নানা অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে৷ ব্যবসায়ীদের কারও কারও কথায়, এই মার্কেট থাকুক মালিকই তো তা চাননি৷ বদলে প্রোমোটিংয়ের দিকেই ঝুঁকতে চেয়েছিল কর্তৃপক্ষ৷ ভাড়াটেদের সঙ্গে এ নিয়ে সম্পর্কেও ফাটলও ধরেছিল৷ মার্কেটের ব্যবসায়ী সমিতির প্রেসিডেন্ট তো স্পষ্ট বলেই দেন, এই আগুন লাগানো হয়েছে৷ আর তাতে হাত রয়েছে মালিকদের৷

আরও পড়ুন: আগুনের গ্রাসে একেবারে পুড়ে ছাই শিব-কৃষ্ণের কৃপা