বেইরুট ও ঢাকা: ভূমধ্যসাগর তীরে লেবাননের রাজধানী বেইরুটে ভয়াবহ বিস্ফোরণের ঘটনার পিছনে ঠিক কী কারণ তা স্পষ্ট নয়। তবে এই বিস্ফোরণের ধাক্কা এসে লাগল বঙ্গোপসাগর তীরে বাংলাদেশে। একাধিক বাংলাদেশি নৌ সেনা জখম। মৃত্যু হয়েছে একজনের।

আলজাজিরা ও বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা(বাসস)জানাচ্ছে, বেইরুটে বিস্ফোরণের সময় লেবানন উপকূলের কাছে নোঙর করে ছিল বাংলাদেশ নৌ বাহিনির যুদ্ধ জাহাজ বিএনএস বিজয়। প্রবল বিস্ফোরণে জাহাজ কেঁপে ওঠে। জাহাজে থাকা নাবিকরা ছিটকে পড়েন। পরে এক নৌ সেনার মৃত্যু ও ২১ জনের জখম হওয়ার সংবাদ এসেছে। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বাংলাদেশ নৌ বাহিনি জানাচ্ছে, ২০১০ সাল থেকে নৌবাহিনীর যুদ্ধজাহাজ লেবাননে রাষ্ট্রসংঘ শান্তিরক্ষা মিশনে অংশগ্রহণ করে আসছে। শান্তিরক্ষা মিশন ইউনিফিলের তত্ত্বাবধানে জখম বাংলাদেশি নৌ সেনাদের চিকিৎসা চলছে। রয়েছে। নৌ বাহিনির জাহাজ বিজয় কতটা ক্ষতিগ্রস্থ তা এখনও জানা যায়নি।

এদিকে বিস্ফোরণে হাজার হাজার মানুষ জখম। আল জাজিরার খবর, মৃতের সংখ্যা লেবাননের সরকারি হিসেবে ১০০ ছুঁয়েছে। কিন্তু যে ভয়ঙ্কর বিস্ফোরণ ঘটেছে তার ছবি ও বর্তমান পরিস্থিতির ইঙ্গিত মৃতের সংখ্যা আরও বাড়বে। এই বিস্ফোরণের পিছনে জঙ্গি যোগের তত্ত্ব প্রাথমিকভাবে খারিজ করেছে লেবানন সরকার।

মনে করা হচ্ছে বন্দরের কাছে মজুত করা বিস্ফোরক থেকেই এই ভয়ঙ্কর ঘটনা ঘটেছে। এখনও পর্যন্ত কোনও জঙ্গি গোষ্ঠী বিস্ফোরণের দায় নেয়নি। বাংলাদেশ সেনাবাহিনি বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে রাষ্ট্রসংঘ শান্তিরক্ষী সেনার হয়ে গুরুত্বপূর্ণ মিশনে অংশ নিয়ে থাকে।

ভূমধ্যসাগর তীরে লেবানন উপকূলে মেরিটাইম ইন্টারডিকশন অপারেশন, সন্দেহজনক জাহাজ ও এয়ারক্রাফটের উপর নজরদারি, দুর্ঘটনা কবলিত জাহাজে উদ্ধার তৎপরতা এবং দেশটির নৌ সদস্যদের প্রয়োজনীয় প্রশিক্ষণ প্রদানের কাজ করে যাচ্ছে।

প্রশ্ন অনেক: দশম পর্ব

রবীন্দ্রনাথ শুধু বিশ্বকবিই শুধু নন, ছিলেন সমাজ সংস্কারকও