বালুরঘাটঃ ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে বিতর্কিত পোস্ট শেয়ার করার অভিযোগে তৃণমূল নেতাকে পদ থেকে বহিঃষ্কার। গোটা দেশ যখন পুলওয়ামারার ঘটনায় শোকস্তব্ধ হয়ে মোমবাতি হাতে রাস্তায়। দলমত নির্বিশেষে সমস্ত রাজনৈতিক দল যখন ভারতীয় জওয়ান তথা দেশের সরকারের পাশে দাঁড়িয়ে সন্ত্রাসবাদ ও পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়েছে।

তখন বালুরঘাটে তৃণমূলের এসএটি সেলের শহর প্রেসিডেন্ট শান্ত কুমার সরকার উলটে কাশ্মীরের ঘটনায় উলটে ভারতীয় সেনাকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছেন। আর তা নিয়ে তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়।

তিনি ফেসবুকে সেনা বাহিনীর বিরুদ্ধাচরণের একটি পোস্ট লাইক ও শেয়ার করে তা সকলের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে সহযোগিতা করেছেন বলে অভিযোগ। যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সমালোচনার ঝড় শুরু হয়ে যায়। তৃণমূল নেতার শেয়ার করা সেই পোস্টের স্ক্রিনশট ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপে সকলের হাতে হাতে ঘুরতে থাকে। পোস্টে ভারতীয় সেনার বিরুদ্ধে ৯৪ হাজার কাশ্মীরি মুসলিমকে হত্যা এবং ১০ হাজার মহিলাকে ধর্ষণের অভিযোগ করে এই নেতা।

অভিযুক্ত শান্ত কুমার সরকার তৃণমূলের এসএসটি সেলের বালুরঘাটের সভাপতিই নন, তিনি টাউন যুব তৃণমূলের সহসভাপতিও ছিলেন।

রবিবার তৃণমূল কংগ্রেসের এসএসটি সেলের জেলা সভাপতি তথা প্রাক্তন বিধায়ক সত্যেন রায় জানিয়েছেন যে শান্ত কুমার সরকারকে তার কৃতকর্মের জন্যই পদ থেকে বহিঃষ্কার করা হয়েছে। বিষয় নিয়ে দলের জেলা সভাপতি বিপ্লব মিত্রের সাথে আলোচনা করে করেই এসএসটি সেলের বালুরঘাটের সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে শান্ত কুমার সরকারকে।

এই সেই তৃণমূল নেতার বিস্ফোরক পোস্ট।

এই বিষয়ে অভিযুক্ত এই তৃণমূল নেতার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ভুল করে এমন একটি পোস্ট করে ফেলেছিলেন। যদিও পরে তিনি তাঁর ভুল বুঝতে পারেন এবং তা ডিলিটও করে দেন। দল থেকে বহিস্কারের ব্যাপারে শান্ত সরকার জানিয়েছে, এই ব্যাপারে দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে কথা বলবেন। প্রয়োজনে লিখিতভাবে ক্ষমাও চাইবেন বলে জানিয়েছেন তিনি।