স্টাফ রিপোর্টার, নন্দকুমার: উৎসবের রেশ কাটেনি৷ মিলিয়ে যায়নি আনন্দের বাদ্যি৷ সেই রেশ বজায় রেখেই মানুষ মাতলেন লক্ষ্মী প্রতিমা কার্নিভ্যালে৷ পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দকুমারে দেখা গেল উৎসবের সেই ছবি৷

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগে কলকাতায় ঘটা করে দুর্গা প্রতিমা কার্নিভ্যালের আয়োজন করা হয়। সেই মডেলেই এবার নন্দকুমারে এলাকার লক্ষ্মী প্রতিমা নিয়ে কার্নিভ্যালের আয়োজন করা হল৷ সৌজন্যে নন্দকুমারের তরুণোদয় সংঘ।

গত ৫ বছর ধরে এলাকার মানুষকে এক সাথে একাধিক প্রতিমা দেখার সুযোগ করে দেওয়ার জন্য কার্নিভ্যালের আয়োজন করে আসছে। শনিবার রাতে নন্দকুমার ব্লকের ৩০টি পুজো উদ্যোক্তারা তাদের প্রতিমা কার্নিভ্যালের প্রদর্শন করেন৷ কার্নিভ্যালে অংশগ্রহনকারীদের মধ্যে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানাধিকারী ছাড়াও, ৫টি ক্লাবকে সান্ত্বনা পুরস্কার দেওয়া হয়।

এই কার্নিভ্যালে প্রথম হয় নন্দকুমারের কুমোরআড়ার নটবর ক্লাব, দ্বিতীয় কুমোরআড়ার অগ্নি সংঘ এবং তৃতীয় হয়েছে নামালের বন্ধু সংঘ। তাদের হাতে যথাক্রমে ১৫০১ টাকা, ট্রফি ও প্রশংসাপত্র, দ্বিতীয় স্থানাধিকারীকে ১২০১ টাকা, ট্রফি ও প্রসংশাপত্র, তৃতীয় স্থানাধিকারীকে ১০০১ টাকা, ট্রফি ও প্রসংশাপত্র দেওয়া হয়৷ এছাড়াও ৫টি ক্লাবকে সান্ত্বনা পুরস্কার হিসাবে ২০০ টাকা, ট্রফি ও প্রসংশাপত্র দেওয়া হয়।

পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নন্দকুমার পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি দীননাথ দাস, নন্দকুমারের সি আই তীর্থঙ্কর ভট্টাচার্য, জেলা পরিষদের সদস্য শ্রীবানী দে কুন্ডু সহ অন্যান্যরা। ক্লাব সভাপতি প্রসেনজিৎ মাইতি জানান, এলাকায় বহু পুজো উদ্যোক্তারা পুজো করে থাকেন। তাদের উৎসাহিত করার জন্য এবং এলাকার মানুষকে এক সাথে একাধিক প্রতিমা ও আলোক সজ্জা দেখানোর জন্য গত ৫ বছর ধরে এই কার্নিভ্যালের আয়োজন করা হয়৷