নয়াদিল্লি: কংগ্রেস থেকে বহিস্কার করা হল আইনজীবী অ্যালজো কে জোসেফকে৷ অগস্তা ওয়েস্টল্যান্ড কপ্টার চুক্তির অন্যতম মধ্যস্থতাকারী ক্রিশ্চিয়ান মিচেলের হয়ে আদালতে সওয়াল করতে দেখা যায় এই আইনজীবীকে৷ জোসেফকে তাড়ানোর কারণ হিসাবে কংগ্রেসের সাফাই, তিনি দলের নেতাদের সঙ্গে শলা পরামর্শ না করে ক্রিশ্চিয়ান মিচেলের মামলাটি হাতে নিয়েছেন৷

যুব কংগ্রেসের লিগ্যাল শাখার ন্যাশনাল-ইন-চার্জের দায়িত্বে ছিলেন অ্যালজো৷ অল ইন্ডিয়া কংগ্রেস কমিটির যুগ্ম সচিব কৃষ্ণ অল্লাভারু ট্যুইট করে জানান, অ্যালজো ব্যক্তিগতভাবে এই মামলা লড়ছেন ঠিকই৷ কিন্তু এই মামলা হাতে নেওয়ার আগে তাঁর উচিত ছিল দলকে বিষয়টি জানানো৷ দল এই ধরনের কাজ অনুমোদন করে না৷ তাই অ্যালজো জোসেফকে লিগ্যাল শাখা ও দল থেকে বহিস্কার করা হল৷

ক্রিশ্চিয়ান মিচেলের মামলাটি অ্যালজো কে জোসেফ হাতে নেওয়ার পরই অস্বস্তিতে পড়ে কংগ্রেস৷ বিজেপি এই নিয়ে রাহুল ও সোনিয়া গান্ধীকে তোপ দাগে৷ অ্যালজো অবশ্য মিচেলের মামলাটি হাতে নেওয়ার কারণ হিসাবে জানান, দুটি বিষয়কে এক করে দেখা উচিত নয়৷ কংগ্রেসের সঙ্গে সম্পর্ক আলাদা জায়গায়৷ আইনজীবী হিসাবে তাঁর পেশা আলাদা জায়গায়৷ এক্ষেত্রে একজন মক্কেলের হয়ে তিনি আদালতে সওয়াল করেছেন৷ এর সঙ্গে কংগ্রেসের কোনও যোগ নেই৷ কিন্তু তাতে চিড়ে ভেজেনি হাইকমান্ডের৷ কিছুক্ষণ পরই দল থেকে তাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয় কংগ্রেস৷

ইউপিএ সরকারের আমলে ৩ হাজার ৭২৭ কোটি টাকার অগস্তা চপারকাণ্ড হয়। অভিযোগ ওঠে ইতালিতে তৈরি এই চপার ভারতকে বিক্রি করতে টেবিলের তলা দিয়ে চুক্তি হয়েছে। ব্রিটেনের নাগরিক ক্রিশ্চিয়ান এই চপার দুর্নীতির অন্যতম কুশীলব বলে জানা যায়। মিচেলকে প্রায় ৩৫০ কোটি টাকা দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। এছাড়াও ভারতের বিভিন্ন প্রভাবশালীদের পকেটেও একটা বড় অঙ্কের অর্থ এসেছিল বলেও অভিযোগ।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ