সম্প্রতি অনলাইনে আসন্ন গুগল পিক্সেল ওয়াচের একটি রেন্ডার প্রকাশ করা পেয়েছে। গুঞ্জন উঠেছে আসন্ন এই ঘড়িটি অ্যাপেল ওয়াচ সিরিজ ৬ এবং স্যামসং গ্যালাক্সি ওয়াচ ৩ এর বেশ কিছু অংশ গ্রহণ করা হয়েছে। অনলাইনে প্রকাশ করা রেন্ডারগুলি থেকে বোঝা যাচ্ছে ভিন্ন রঙের ব্যান্ডের সঙ্গে গ্রাহক পাবে এই ঘড়িটি। রেন্ডার অনুসারে ঘড়িটির ডায়ালের ডানদিকে অবস্থিত একটি বোতাম ছাড়া স্মার্টওয়াচে আর কোনও বোতাম নেই । মনে করা হচ্ছে স্মার্টওয়াচটি পিক্সেল ৬ স্মার্টফোনের পাশাপাশি অক্টোবরে লঞ্চ করা হতে পারে বাজারে।

টিপস্টার জন প্রসারের প্রকাশ করা রেন্ডার অনুযায়ী আসন্ন গুগল পিক্সলে ওয়াচের কোড নাম রাখা হয়েছে “রোহান”। স্যামসং এবং অ্যাপেলের স্মার্ট ওয়াচের মতো গুগল পিক্সেলের স্মার্ট ওয়াচেও একটি বোতাম রয়েছে। গুগলের এই স্মার্ট ওয়াচের ব্যান্ডটি সিলিকন দিয়ে তৈরি করা হয়েছে যাতে খুব সহজে ব্যবহারকারী তা পরিবর্তন করতে পারে।

টিপস্টার প্রসার আরও জানিয়েছেন, গুগল পিক্সেল ওয়াচটিতে ২০ টি ব্যান্ড অপশন দেওয়া হবে গ্রাহকদের। এর পাশাপাশি তিনি জানান, চলতি বছরের আগামী অক্টোবর মাসে পিক্সেল ৬ স্মার্টফোনের সঙ্গে লঞ্চ করা হতে পারে এই স্মার্ট ওয়াচটি। টিপস্টার নিজের ইউটিউব শো “ফ্রন্ট পেজ টেক” এর একটি পর্বে জানিয়েছেন রেন্ডারগুলি বিপণন সামগ্রীর উপর ভিত্তি করে যা তিনি গুগলের একটি উৎস থেকে জেনেছিলেন।

আসন্ন গুগল পিক্সল ওয়াচের বৈশিষ্ট্যের বিষয়ে বলা মুশকিল কারণ সেগুলি এখনও প্রকাশ করা হয়নি। তবে মনে করা হচ্ছে গুগল পিক্সেল স্মার্টওয়াচ সংস্থাটির অপারেটিং সিস্টেম গুগল ওয়্যার ওএস দ্বারা চালনা করা হবে। এর পাশাপাশি এই স্মার্ট ওয়াচে থাকবে হার্ট রেট মনিটরিং এবং মাল্টি স্পোর্ট মোডের পরিষেবার মতো একাধিক সুবিধা।

গুগল সম্প্রতি ফিটনেস পরিধানযোগ্য সংস্থা ফিটবিট কেনার চুক্তিটি বন্ধ করে দিয়েছে। আর সেই কারণে একটা গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে যে গুগল পিক্সেল স্মার্টওয়াচে রক্তের অক্সিজেন পর্যবেক্ষণের পাশাপাশি ভয়েস কমান্ড সমর্থনের সুবিধার মতো স্বাস্থ্য বৈশিষ্ট্যের পরিষেবা থাকতে পারে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.