কলকাতা: সোমেই সোমনাথের ইতি৷ সকাল সোয়া আটটা, মিন্টো পার্কের বেসরকারি হাসপাতাল সূত্রে খবরটা নিশ্চিত হল৷ প্রয়াত হলেন সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়৷ ৮৯ বছরে জীবনের কাছে হার মানলেন৷ শেষ হল সোমনাথ পর্বের৷ একটা ক্রমবর্ত ইতিহাসের ইতি ঘটল বর্ষা ভরা অগাস্টের ১৩ তারিখে৷ শেষ যাত্রাতেও খামতি রইল না৷ তাঁর ভালোবাসার মানুষগুলির কাছেই শেষ শ্রদ্ধা পেলেন সোমনাথ৷

হাসপাতাল থেকে দুপুরেই হাই কোর্টে নিয়ে যাওয়া হয় সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের দেহ৷ সেখানে তাঁকে শ্রদ্ধা জানান হাই কোর্টের আইনজীবীরা৷ হাই কোর্ট থেকে দেহ নিয়ে যাওয়া হয় বিধানসভায়৷ উপস্থিত ছিলেন সর্বদলীয় কাজনৈতিক নেতৃত্ব৷ পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় গান স্যালুটে শেষ শ্রদ্ধা জানান হয় সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়কে৷ উপস্থিত ছিলেন সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের স্ত্রী রেণু বসু, মেয়ে অনুশীলা৷ শেষ শ্রদ্ধা জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সহ তৃণমূল নেতৃত্ব৷ শ্রদ্ধা জানান অধীর চোধুরী, সুজন চক্রবর্তী সহ অন্যান্য রাজনৈতিক নেতারা৷

বিধানসভা থেকে মৃতদেহ পৌঁছয় সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের বাসভবনে৷রাজা বসন্ত রায় রোডের বাড়িতে আত্মীয়-পরিজন-বন্ধুদের ভিড়ে পৌঁছয় সোমনাথের মরদেহ৷ দীর্ঘ সময়ের জন্য শায়িত রাখা হয় তাঁর দেহ৷ মুখ্যমন্ত্রী মমতা
বন্দোপাধ্যায় অনেক আগেই সোমনাথে বাস ভবনে এসে তাঁকে শ্রদ্ধা জানান৷ একে একে রাজনৈতিক নেতৃত্বরা এসে শ্রদ্ধা জানান৷ সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে দিল্লি থেকে আসেন লোকসভার স্পিকার সুমিত্রা মহাজন৷ রাজ্যপাল কেশরীনাথ ত্রিপাঠীও শ্রদ্ধা জানাতে সোমনাথে বাসভবনে পৌঁছন৷ সিপিএমের তরফে সূর্যকান্ত মিশ্র, বিমান বসুরাও এসে শ্রদ্ধা জানান৷ আসেন সীতারাম ইয়েচুরিও৷

দাহ নয় দেহদান হবে সোমনাথ চট্টোপাধ্যায়ের৷ বাসভবন থেকে এসএসকেএমে নিয়ে যাওয়া হয় তাঁর দেহ৷

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।