ওয়েলিংটন: ট্যাঁরা চোখে তাকায় টিয়া… খাঁচায় হোক বা বনে থাকা, ঘাড় বেঁকিয়ে টিয়া তাকায় ট্যাঁরা চোখেই। এটা দেখতে অভ্যস্ত আমরা। কিন্তু বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, দু কোটি বছর আগের টিয়া পাখির দল ছিল রাক্ষুসে। তারা বিরাট আকারের হত। এমনকি ছিল হিংস্র স্বভাবের।

বিবিসি একটি গবেষণা সংক্রান্ত রিপোর্ট প্রকাশ করেছে। সেই গবেষণায় উঠে এসেছে প্রায় ২ কোটি বছর আগের পৃথিবীতে প্রায় ৩ ফুট লম্বা টিয়া পাখিরা ছিল।

তারমানে বিরাটকায় এক পাখির প্রজাতির সম্পর্কে নিশ্চিন্ত হওয় গিয়েছে। এর সূত্র মিলেছে, নিউজিল্যান্ডে। ১০ বছর আগে সেখানে প্রাপ্ত ফসিল নিয়ে গবেষণা করে বিজ্ঞানীরা বিরাটকায় টিয়া পাখির সম্পর্কে জানাচ্ছেন।

আরও পড়ুন : পুলিশ ভাইদের জন্য রাখি তৈরি পতিতাপল্লী ফেরত মেয়েদের

এতদিন পর্যন্ত এই ফসিলটি ঘিরে দ্বন্দ্ব ছিল এটা টিয়া না ঈগলের। গবেষকরা সেই দ্বন্দ্ব কাটিয়েছেন। তাদের দাবি এটা টিয়া পাখি। এর নাম স্কোয়াওকজিলা। পাখির দুটি পায়ের হাড়ের ওপর ভিত্তি করে এর বিশাল আকৃতি সম্পর্কে অনুমান করা হয়েছে।

বিবিসি জানাচ্ছে, ২০০৮ সালে নিউজিল্যান্ডের সেন্ট বাথানস অঞ্চলে এই জীবাশ্ম পাওয়া যায়। সেখানে আরও নানা প্রজাতির পাখির হাড় ছিল। পরে সেখান থেকে বিরাট আকারের পাখির হাড় আলাদা করা হয়। সেটা নিয়েই এতদিন গবেষণা চলছিল।

আরও পড়ুন : গরু-শূয়োরের মাংস ডেলিভারি নয়, জোমাটো কর্মীদের ফরমানে সমর্থন তৃণমূলের

গবেষকদের দাবি, পাখিটির ওজন ছিল প্রায় ৭ কেজি। বেশি ওজনের জন্য উড়তে পারত না। এই ধরণের টিয়া পাখি খিদে পেলে অনেক সময় নিজের প্রজাতির অন্য পাখিকেও খেয়ে ফেলত।

স্কোয়াওকজিলা নিয়ে আরও গবেষণা চলছে। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, পাখিটির সম্পর্কে মিলবে নানা তথ্য। এর ফলে তিন কোটি বছর আগের দুনিয়া সম্পর্কে জানা যাবে বহু কিছু।