মুম্বই: উৎকণ্ঠার অবসান ঘটিয়ে হাসপাতালের বেডে শুয়ে গতকালই বার্তা দিয়েছিলেন তিনি সুস্থ আছেন। এরপর কথামতো বুধবার দুপুরে মুম্বইয়ের হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেলেন ক্রিকেটের রাজপুত্র ব্রায়ান চার্লস লারা।

উল্লেখ্য বিশ্বকাপ সম্প্রচারকারী স্টার নেটওয়ার্কের বিশেষজ্ঞ হিসেবে আপাতত মুম্বইতে রয়েছেন টেস্ট ক্রিকেটে এক ইনিংসে ৪০০ রানের মালিক। মঙ্গলবার সকালে জিমে অতিরিক্ত সময় কাটানোর পরেই বুকে ব্যথা অনুভব করেন বছর পঞ্চাশের কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান। এরপর তাঁকে তড়িঘড়ি বাণিজ্যনগরীর নিকটবর্তী একটি হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। অ্যাঞ্জিওগ্রাফিতে কোনও বিপদের শঙ্কা না-থাকায় অ্যাঞ্জওপ্লাস্টির রাস্তায় হাঁটেননি চিকিৎসকরা৷ একটু সুস্থ হওয়ার পর হাসপাতালের বেডে শুয়ে ইংল্যান্ড-অস্ট্রেলিয়ার ম্যাচ দেখেন তিনি৷

আরও পড়ুন: কটরেলের সেলিব্রেশন অবিকল নকল করে ভাইরাল দুই খুদে অনুরাগী

লারার অসুস্থতার খবর পেয়ে উদ্বেগ ছড়িয়ে পড়ে অনুরাগীদের মধ্যে। তাঁর আরোগ্য কামনা শুরু করেন শুভাকাঙ্খীরা। পরে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেটের তরফে লারা এক অডিওবার্তা প্রকাশ করা হয়, যেখানে কিংবদন্তি এই বাঁ-হাতি ব্যাটসম্যান বলেন, ‘আমি জানি, প্রত্যেকেই আমার জন্য ভীষণ চিন্তা করছেন৷ সকালে জিমে ওয়ার্ক-আউট করার পর আমি অসুস্থবোধ করি৷ বুকে ব্যাথা অনুভব হওয়ায় চিকিৎকদের দেখানোর সিদ্ধান্ত নিই৷ আমাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়৷ যন্ত্রণা হওয়ায় অনেক টেস্টও করা হয়৷’

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপের ‘অ্যাশেজ’ হেরেও ঘুরে দাঁড়ানোর হুঙ্কার স্টোকসের গলায়

ত্রিনিদাদের রাজপুত্র আরও জানান, ‘প্রত্যেককে জানাই, আমি ভালো আছি৷ বুধবারই হোটেলের রুমে ফিরব৷ বেশ কিছু পরীক্ষার করা হয়েছে৷ চিকিৎকরা রিপোর্ট দেখে খুশি৷ প্রত্যেককে অসংখ্য ধন্যবাদ৷’ বিশ্বের সর্বকালের সেরা ক্রিকেটারদের মধ্যে অন্যতম লারা ২০০৭ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর নেন৷ সে বছর ২১ এপ্রিল ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে কেরিয়ারের শেষ আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেন তিনি৷

আরও পড়ুন: সম্মতি দিল ডার্বি কাউন্টি, চেলসিতে ফিরতে বাধা রইল না ল্যাম্পার্ডের

কথামতোই আর কোনও বিপদের শঙ্কা না থাকায় বুধবার দুপুরে হাসুপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হয় ব্রায়ান লারাকে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফ এদিন জানানো হয়, ‘স্থানীয় সময় দুপুর ১২ টায় হাসপাতাল থেকে ছাড়া পেয়েছেন লারা। এখন সম্পূর্ণ বিপদমুক্ত তিনি।’