বেজিং: বিশ্বজুড়ে বাড়ছে করোনা আতঙ্ক। তারই মধ্যে একাধিক দেশ এই মুহূর্তে ব্যস্ত প্রতিষেধক তৈরি করার কাজে। বেশ কিছু দেশে এই মুহূর্তে জারি করা হয়েছে লক ডাউনের। যাতে সংক্রমণের হার নিয়ন্ত্রণে থাকে।কিন্তু তার মধ্যে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। তবে সম্প্রতি জানা গিয়েছে চিনের ইউহান প্রদেশে কোন প্রানীর থেকে ছড়ায় নি করোনা ভাইরাস।

সম্প্রতি জানা গিয়েছে চিনের বাজারে এই ভাইরাস কোন প্রানীর থেকে ছড়ায় নি। কোন সংক্রমিত ব্যক্তির থেকে প্রথমে ওই বাজারে ভাইরাস ছড়িয়েছিল। আর তারপরে সেখান থেকে তা গোটা বিশ্বে মহামারীর আকার ধারন করে। বিশেষজ্ঞদের তরফে জানানো হয়েছে এই বিষয়টি সামনে আসাতে তারা হতবাক হয়েছিল। কারণ প্রাথমিকভাবে তাদের মনে হয়েছিল কোন প্রানীর থেকে এই ভাইরাস মানব শরীরে ছড়িয়ে পড়েছিল। প্রাথমিক ভাবে চিনের তরফে এই বিষয়টি গোটা বিশ্বকে বোঝানোর চেষ্টা করা হয়েছিল। কিন্তু নয়া এই পদক্ষেপ চিনের এই চেষ্টাকে ভুল প্রমাণ করেছে সহজেই।

আলিনা চান এবং আরও এক বিশেষজ্ঞ জানিয়েছেন পরীক্ষা করে পাওয়া তথ্য বিশ্লেষণ করে জানা গিয়েছে কোন পশু থেকে এই ভাইরাস মানব শরীরে প্রবেশ করেনি। কিন্তু বেজিং স্বাস্থ্য দফতরের তরফে জানানো হয়েছিল ইউহান মার্কেটে এটি প্রানী থেকে মানুষের শরীরে প্রবেশ করেছিল।

তবে ইতিমধ্যে একাধিক দেশ এই ভাইরাসের গতিপ্রকৃতি এবং প্রতিষেধক তৈরি করার কাজে ব্যস্ত। বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়েও এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে গবেষণা শুরু হয়েছে। কিন্তু তার মধ্যে এই সাম্প্রতিক গবেষণা যে কিছুটা হলেও চিনকে ধাক্কা দিয়েছে তা নিশ্চিত ভাবে বলাই যায়।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ