নয়াদিল্লি: ললিত মোদীর বিরুদ্ধের রেড কর্নার নোটিশ জারি করার পথে আরও একধাপ এগিয়ে গেল সিবিআই। বুধবার সিবিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, ইন্টারপোলের কাছে এই সংক্রান্ত নথি পাঠানো হয়েছে। মনে করা হচ্ছে, এর ফলে ললিত মোদীকে ভারতে ফিরিয়ে আনা সহজ হবে। আইপিলের এই প্রাক্তন কর্তার বিরুদ্ধে কর ফাঁকি, আর্থিক তছরুপ সহ অনৈতিকভাবে আইপিল ভুক্ত দলের হস্তান্তর সংক্রান্ত অভিযোগ রয়েছে।

 

গত মাসেই মুম্বই আদালত ললিত মোদীর বিরুদ্ধে জামিন অযোগ্য ধারায় পরোয়ানা জারি করে। তবে সে সময়ও ললিত মোদীর আইনজীবী আদালতে বলেন, ভারতে ললিতের প্রাণ সংশয় রয়েছে। বিচারের সময় ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে ললিত মোদী উপস্থিত থাকবেন। ২০১০ সালে স্ত্রীর অসুস্থতার কথা বলে ভারত ছাড়েন ললিত। সেই সময় তাঁকে সাহায্য করার দায়ে সুষমা স্বরাজের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন কংগ্রেস সহ বিরোধী নেতারা। গোটা বাদল অধিবেশন কার্যত সংসদ চলেনি এই ইস্যুতে। এর মধ্যেই একের পর এক সামনে এসেছে মুম্বই পুলিশ কমিশনারের সঙ্গে ললিতের বৈঠক করার তথ্য। ৪৯ বছরের ললিতকে এর পর রেড কর্নার নোটিশের বলে ভারতে আনা যায় কি না সেটাই দেখন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.