মুম্বই: চলতি বছরে হচ্ছে না ১১ দিনের গণেশ ফেস্টিভ্যাল। ৮৪ বছরের ইতিহাসে এই প্রথমবার অনুষ্ঠিত হবে না ‘লালবাগচা রাজা’ গণেশ পুজো। করোনা পরিস্থিতির দিকে নজর দিয়ে অনুষ্ঠান বাতিলের এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে কর্তৃপক্ষের তরফে। তবে সেখানে তৈরি হবে রক্ত এবং প্লাজমা ডোনেশন ক্যাম্প।

লালবাগ গণেশ মণ্ডলীর সেক্রেটারি সুধীর সালভি জানিয়েছেন, “আমরা চলতি বছরে কোন গণেশ মূর্তি রাখছি না নয়ত তা দেখতে মানুষের ঢল নামবে”।

মুম্বইয়ের পরেল অঞ্চলে লালবাগের গণেশ মূর্তি সবচেয়ে বড় এবং প্রচুর মানুষ প্রতিবছর তা দেখতে ভিড় জমান। এই বছরে সেখানে ১১ দিনের এই অনুষ্ঠানে একটি রক্তদান শিবির এবং প্লাজমা থেরাপি ক্যাম্পের আয়োজন করা হবে।

এছাড়াও একটি রক্তদান শিবির এবং প্লাজমা থেরাপি ক্যাম্পের আয়োজন করা হবে এবং আরোগ্য উৎসব পালন করবে কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন সামাজিক কাজে নিজেদের নিয়োজিত করেছে মন্ডল কর্তৃপক্ষ। আরও সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, মুখ্যমন্ত্রীর তহবিলে দেওয়া হবে ২৫ লাখ টাকা।

সম্প্রতি মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধভ ঠাকরে করোনা সকল ধর্মের মানুষকে তাদের সেলিব্রেশন বন্ধ রাখার জন্য ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

তিনি জানিয়েছেন, মহারাষ্ট্রে করোনা পরিস্থিতির উন্নতি হলেও সংকট পুরোপুরি কাটেনি। তাই লকডাউনের নিয়ম মেনে চলার অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। কিছুদিন আগে বহুচর্চিত দহি হাণ্ডি অনুষ্ঠান বাতিল করা হয়েছে।

মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, “করোনা পরিস্থিতিতে আমি দহি হাণ্ডি মণ্ডলীকে অনুষ্ঠান বাতিলের জন্য ধন্যবাদ জানি”। বুধবার করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ মহারাষ্ট্রে ৫০০০ ছাড়িয়েছে। মুম্বইতে প্রায় ১০০০ সংক্রমণ। রাজ্যে মোট সংক্রমণ ১,৭৪,৭৬১ জন।

একইরকমভাবে কয়েক যুগ ধরে চলে আসছে পুরীর ঐতিহাসিক রথযাত্রা। তবে ২০২০ সালের ছবিটা একদম অন্য। করোনা ভাইরাসের আবহে সব রীতি একধাক্কায় ভাঙতে চলেছে। ঊর্ধ্বমুখী করোনা সংক্রমণের জেরে পুরীর রথযাত্রার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট। এবার সেই নির্দেশ মেনে নিয়ে পুরীর রথযাত্রা স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওডিশা।

পুরীর এই রথযাত্রাকে বহু জমায়েতের আশঙ্কা করে সুপ্রিম কোর্ট। করোনা পরিস্থিতিতে এই জমায়েত আরও বিপদজনক হতে পারে। সেই কারণে এই বছর রথযাত্রার উপর স্থগিতাদেশ দিয়ে দেয় সর্বোচ্চ আদালত। আদালতের এহেন নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে ২০টির বেশি পিটিশন দাখিল হয়েছিল৷ এরপরে জানানো হয় শর্ত মেনে হবে রথযাত্রা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ