আলমেরে: জাপানের ইউসুকে ওনোদেরাকে হারিয়ে কেরিয়ারের প্রথম বিডব্লিউএফ ওয়ার্ল্ড ট্যুর খেতাব জিতলেন লক্ষ্য সেন। বেলজিয়ান ওপেনে খেতাব জয়ের পর রবিবার ডাচ ওপেনেও খেতাব জয়ের লক্ষ্যে অবিচল থাকলেন দেশের উদীয়মান এই শাটলার। প্রথম গেম খোয়াতে হলেও পরের দুই সেট জিতে দুরন্ত কামব্যাক করলেন বছর আঠারোর লক্ষ্য। জাপানি প্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধে মেগা ফাইনালে এদিন লক্ষ্য’র পক্ষে ম্যাচের ফল ১৫-২১, ২১-১৪, ২১-১৫।

বিডব্লুএফ র‍্যাংকিংয়ে ৭২ নম্বরে থাকা লক্ষ্য’র ফাইনালের শুরুটা যদিও মোটেই আশানরূপ হয়নি। ৮৮ ধাপ পিছিয়ে থাকা ইউসুকের বিরুদ্ধে এদিন বিডব্লুএফ সুপার ১০০ টুর্নামেন্টের ফাইনালের প্রথম গেম খুঁইয়ে বসেন দেশের এই তরুণ শাটলার। পিছিয়ে থেকেই প্রথম গেমের বিরতিতে যান লক্ষ্য। বিরতি থেকে ফিরে ব্যবধান কমিয়ে আনলেও ব্যবধান ঘুচিয়ে এগিয়ে যাওয়া সম্ভব হয়নি ভারতীয় শাটলারের পক্ষে। অন্যদিকে লিড ধরে রেখে প্রথম গেম নিজের নামে করে নিতে সক্ষম হন জাপানি শাটলার। শেষমেশ ২১-১৫ ব্যবধানে প্রথম গেম জিতে ম্যাচে লিড নেন ইউসুকে।

দ্বিতীয় গেমে তুল্যমূল্য লড়াইয়ের সাক্ষী থাকে ডাচ ওপেনের সেন্টার কোর্ট। ৮-৫ ব্যবধানে লক্ষ্য দ্বিতীয় গেমে প্রাথমিকভাবে এগিয়ে গেলেও দারুণ কামব্যাক করেন ইউসুকে। ফের ১২-১১ ব্যবধানে এগিয়ে যাওয়া লক্ষ্য’র ঘাড়ে নিঃশ্বাস ফেলতে থাকেন জাপানি শাটলার। ১২-১১ ব্যবধানে এগিয়ে থাকা অবস্থায় টানা ৬ পয়েন্ট সংগ্রহ করে দ্বিতীয় গেমে জয় কার্যত নিশ্চিত করে ফেলেন ভারতীয় শাটলার। শেষ অবধি ২১-১৪ ব্যবধানে দ্বিতীয় গেমে সমতা ফিরিয়ে নির্ণায়ক গেমে অবতীর্ণ হন লক্ষ্য।

নির্ণায়ক গেমে বিপক্ষকে শুরু থেকেই পরিষ্কার আক্রমণের পথ বেছে নেন লক্ষ্য। ১১-৮ ব্যবধানে এগিয়ে থেকে নির্ণায়ক গেমে বিরতিতে যান ভারতীয় শাটলার। বিরতির পর ক্রমেই লিড বাড়িয়ে নিয়ে বিপক্ষের ম্যাচে ফেরার রাস্তা বন্ধ করে দেন বেলজিয়ান ওপেন চ্যাম্পিয়ন। ইউসুকে ১৫ পয়েন্টে দাঁড় করিয়ে রেখে নির্ণায়ক গেম পকেটস্থ করেন তিনি। একইসঙ্গে ডাচ ওপেন জিতে কেরিয়ারের প্রথম বিডব্লিউএফ ওয়ার্ল্ড ট্যুর খেতাব নিজের নামে করে নেন ভারতীয় শাটলার।

বেলজিয়ান ওপেন জয়ের পর এশিয়ান জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপে সোনাজয়ী লক্ষ্য’র ডাচ ওপেন জয় নিঃসন্দেহে গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়াও যুব অলিম্পিকে রুপো জয় কিংবা ওয়ার্ল্ড জুনিয়র চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জ জয় আপাতত লক্ষ্য’র কেরিয়ারে উল্লেখযোগ্য।