স্টাফ রিপোর্টার, হাওড়া: মারণফাঁদে জড়িয়ে গেল একটি লক্ষ্মী পেঁচা।ঘটনাটি ঘটেছে উদয়নারায়ণপুর ব্লকের পালিয়াড়া গ্রামে।আজ সকালে পালিয়াড়া গ্রামের বাসিন্দা পেশায় শিক্ষক শ্যামল জানা স্থানীয় একটি পুকুরে পাতা জালে একটি পূর্ণ বয়স্ক লক্ষ্মীপেঁচাকে আটকে থাকতে দেখেন।

বহুবার পুকুরে জাল দেওয়া নিয়ে প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন প্রকৃতি সচেতন বহু মানুষ।তাতেও টনক নড়েনি।পুকুর বাঁচাতে গিয়ে পাখীদের কাছে মারণফাঁদ পেতে বসছেন বহু মানুষ। আবারও সেরকমই পাতা ফাঁদে জড়িয়ে পড়েছিল পেঁচাটি। তৎক্ষনাৎ পেঁচাটিকে উদ্ধার করে নিজের বাড়িতে আনেন।

খবর দেন স্থানীয় পরিবেশকর্মী সৌরভ দোয়ারীকে। পা’য়ে ক্ষত সৃষ্টি হওয়ায় তিনি প্রাথমিক শুশ্রষা করেন এবং খবর দেন বন দফতরে। বনকর্মীরা এসে আহত পেঁচাটিকে উদ্ধার করেন। সৌরভ দোয়ারীর কথায়, ‘মানুষকে এই ব্যাপারে দ্রুত সচেতন হতে হবে’।

গত বছর একের পর এক ঘটনা দেখা গিয়েছে বাংলায়। কখনও উত্তরবঙ্গ তো কখনও দক্ষিণবঙ্গ। ছবি সেই একইরকম। নতুন বছরেও সি ছবির কোনও বদল হয়নি। এর মধ্যে শিলিগুড়ির ঘটনা সবথেকে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছিল। শীতের মরশুমে ময়নাগুড়ি ব্লকের দোমহনী, বার্নিশ প্রভৃতি এলাকায় অবস্থিত তিস্তা পাড়ের সব্জি খেত গুলিতে চাষ করা হয়েছে কড়াইশুঁটি, তিল, সহ অন্যান্য দানা শস্য। সেই ক্ষেত গুলিতে প্রতিদিন আসে বিভিন্ন ধরনের শালিক,চড়াই সহ পরিযায়ী পাখি।

অভিযোগ পাখি যাতে ফসলের ক্ষতি না করতে পারে তাই সেই ক্ষেত গুলিকে ঢেকে দেওয়া হয়েছে মাছ ধরার জাল দিয়ে। আর সেই জালে আটকে শয়ে শয়ে পাখি মারা যায়।