নয়াদিল্লি: হোটেলের ঘরে এক মহিলা চিকিৎসকের মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়৷ নয়াদিল্লির পাহাড়গঞ্জ এলাকার ঘটনা৷ জানা গিয়েছে ওই মহিলা শনিবার দুপুরে তার স্বামীর সঙ্গে ঝগড়া করে ওই হোটেলে আসেন৷ পুলিশ সূত্রে খবর, শনিবার রাত দুটো নাগাদ তিনি হাতের শিরা কেটে আত্মহত্যা করেন৷

দিল্লির এইমস হাসপাতালের ওই মহিলা চিকিৎসক মৃত্যুর আগে ফেসবুকে কিছু কথা লিখেছিলেন৷ সে লেখা দেখেই পুলিশের অনুমান স্বামীর সঙ্গে তার সম্পর্ক ভাল ছিলনা৷ এছাড়াও তিনি যে সুইসাইট নোটটি লিখেছিলেন তাতে তিনি তার স্বামীর বিরুদ্ধে দোষারোপ করেছেন৷ মহিলার পরিবরের দাবি তার স্বামী সমকামী ও তার সঙ্গে একাধিক পুরুষের সম্পর্ক ছিল৷ মহিলার স্বামীও এইমস হাসপাতালেরই চিকিৎসক বলে জানা গিয়েছে৷ পরিবারের অভিযোগ, ১৫ দিন আগেও ওই মহিলা আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিল৷ কিন্তু সেসময় তাদের কোনও খবর দেওয়া হয়নি৷

পুলিশ বর্তমানে মহিলার দেহ ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছেন৷ মহিলা কেবল তার স্বামীর জন্যই আত্মহত্যা করেছেন নাকি এই ঘটনার পিছনে অন্য কোনও কারণ রয়েছে তা খতিয়ে দেখতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ৷ ইতিমধ্যেই মহিলার স্বামীর বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছেন তার পরিবার৷ অভিযোগের ভত্তিতে মহিলার স্বামীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷