হলদিয়া: শিল্প শহর হলদিয়ায় কর্মসংস্কৃতির আড়ালে চলছে শ্রমিক শোষণ। বছরের পর বছর গড়িয়ে চললেও শ্রমিকদের সঙ্গে বেতন কাঠামো চুক্তি COD-র পুনঃনবীকরণের কোনও ইচ্ছেই প্রকাশ করছে না কারখানা কর্তৃপক্ষ বলে অভিযোগ তুলে বিক্ষোভ দেখায় কারখানার শ্রমিকরা।

এমনই পরিস্থিতির শিকার হলদিয়ার পাতিখালি এলাকায় অবস্থিত টাটা স্টিল (হুগলী মেটকোক) কারখানায়। প্রভাবশালী কিছু নেতার হাত থাকায় কারখানা কর্তৃপক্ষ নতুন করে বেতন কাঠামো নিয়ে চুক্তি করতে অনীহা দেখাচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

এমনই অভিযোগ তুলে শুক্রবার কারখানার কাজ বন্ধ করে প্রায় ১২০০ কর্মী ও শ্রমিক রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন। বিক্ষোভরত শ্রমিকদের দাবী, প্রায় ২৭ মাস অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও নতুন করে COD করা হচ্ছে না। দিনের পর দিন জানানো হলেও কোন ব্যবস্থা গ্রহন না করায় বাধ্য হয়ে শ্রমিকরা বিক্ষোভের পথ বেছে নিয়েছে তারা।

এই ধরণের শ্রমিক শোষণের বিরুদ্ধে বরাবরই আওয়াজ তুলেছা বামেরা। কিন্তু এদিনই বাম শ্রমিক সংগঠন সিটু ছেড়ে প্রায় ১৫০ শ্রমিক যোগ দিয়েছেন বিজেপিতে৷

শুক্রবার মুর্শিদাবাদ জেলার বহরমপুরে ভারতীয় জনতা পার্টির কার্যালয়ে ১৫০ সিটু শ্রমিককে দলে টেনে আনেন জেলা সভাপতি গৌরী শঙ্কর ঘোষ৷ প্রত্যেকের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন৷ গৌরী শঙ্কর ঘোষ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা সম্পাদক তপন চন্দ্র ও অন্যান্য বিজেপি নেতৃত্ব৷

জানা গিয়েছে, যোগদানকারীরা সকলেই ট্রাক শ্রমিক৷ দীর্ঘদিন সিটুর সঙ্গে জড়িত ছিলেন তারা৷ এখন কেন সিটু ছেড়ে বিজেপিতে? জবাবে সকলে একসুরে জানান, বাধ্য হয়েই বিজেপিতে এসেছেন৷ কারণ ইউনিয়নের নেতাদের থেকে কোনও রকম সাহায্য তারা পাচ্ছিলেন না৷ এই নিয়ে অনেকের মধ্যে ক্ষোভ জমতে থাকে৷ দলবদল করে সেই ক্ষোভ কিছুটা প্রশমিত করে নেন সকলে৷

আরও পড়ুন- ধাক্কা খেল কেজরিওয়ালের বিনামূল্যে মহিলাদের যাতায়াতের পরিকল্পনা

এই যোগদানের পর বিজেপি জেলা সভাপতি গৌরী শঙ্কর ঘোষ জানান, অনেকেই এখন দলে আসতে চাইছে৷ সব জেলাতে একই ছবি৷ এখানেও বিজেপিতে যোগদানের হিরিক উঠেছে। তৃণমূল কংগ্রেস, কংগ্রেস ও বামেরা দল ছেড়ে বিজেপিতে আসতে চাইছেন। সেই তালিকায় এবার যোগ হল বামেদের শ্রমিক সংগঠনের কর্মীরা। এই যোগদানের ফলে এই জেলায় বিজেপির শক্তি আরও বৃদ্ধি পেল৷ আগামী দিনে এই যোগদান আরও বাড়বে বলেই জানান বিজেপি জেলা সভাপতি।