কলকাতা: মদন মিত্র কেন পিজিতে রয়েছেন, সেই প্রশ্ন তুলে এবার সরব হলেন সারদা-কাণ্ডে জেলে থাকা তৃণমূলের বহিস্কৃত সাংসদ কুণাল ঘোষ।

বৃহস্পতিবার তিনি এই প্রশ্ন তুললেন ব্যাংকশাল আদালতে। প্রশ্নটা হল, সারদা গোষ্ঠীর আর্থিক কেলেঙ্কারিতে গ্রেফতারির পর থেকে রাজ্যের মন্ত্রী মদন মিত্র বেশির ভাগ সময়টাই হাসপাতালে কাটাচ্ছেন কী ভাবে? কুণাল মদন মিত্রের নাম না করেই এই অভিযোগ করেছেন। ‘এক জন’ বলে উল্লেখ করেন মদনবাবুকে। সারদা মামলায় অভিযুক্ত, তৃণমূলের সাসপেন্ড হওয়া সাংসদ কুণালের বক্তব্য, ‘এক জন’ জেল হেফাজতে থেকেও জেলে নেই। সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালে থেকে আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করার সুযোগ পাচ্ছেন। সকলেই তাঁর সঙ্গে দেখা করতে যাচ্ছে। ‘‘আর আমি দিনের পর দিন জেলে আছি। এই পরিস্থিতিতে আদালতের উপরে ভরসা করা ছাড়া আমার আর কী-ই বা করার আছে,’’ বলেন কুণাল।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.