কলকাতা: বাংলা নববর্ষের শুরুতেই বিস্ফোরক কুণাল ঘোষ৷ বিচারের নামে প্রহসন বন্ধ না হলে আত্মহত্যা করবেন বলে হুমকি কুণালের৷বর্তমানে প্রেসিডেন্সি জেলের হাসপাতালের ৫ নম্বর বেডে রয়েছেন কুণাল৷জেলের কর্মীদের কোনও রকম দোষ ও জিজ্ঞাসাবাদ করবেন না৷সব দোষ আমার, জেল থেকে সরাসরি চিঠি বিচারককে৷ সিবিআইয়ের বিচারের গতির অভিমুখ  বদলে গিয়েছে৷কার্যত জেলের বাইরে বসে মদন মিত্র৷ সৃঞ্জয় বসু, রজত মজুমদার,দেবব্রত সরকার প্রত্যেকেই চাড়া পেয়ে গিয়েছে৷ ‘আমাকে কেনও ছাড়া হচ্ছে না,আমার দোষ কথায়’, চিঠিতে বিচারকের কাছে জানতে চাইলেন কুণাল ঘোষ৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.