কলকাতা: গত বৃহস্পতিবারই ফুটফুটে কন্যাসন্তানের জন্ম দিয়েছেন স্ত্রী পূজা। সদ্যোজাত এবং তাঁর মাকে সুস্থ অবস্থায় বাড়িতে ফিরিয়েও এনেছিলেন ময়দানের পরিচিত নাম আনসুমানা ক্রোমা। সব ঠিকই চলছিল। করোনা আবহে কন্যাসন্তান লাভের খুশিতে ভাসছিলেন কলকাতার ভীষণ আপন লাইবেরিয়ান ক্রোমা। কিন্তু হঠাতই তাল কাটে আনন্দে। বাড়ি ফেরার পর রবিবার হঠাতই অসুস্থ হয়ে পড়ে মাত্র চারদিনের কন্যাসন্তান। আর সদ্যোজাতর শারীরীক অসুস্থতার উপসর্গ নিয়ে শহরের হাসপাতালে-হাসপাতালে হন্যে হয়ে ঘুরতে হল ক্রোমা এবং তাঁর স্ত্রী পূজাকে।

অভিযোগ, অসুস্থ সদ্যোজাতকে নিয়ে মুকুন্দপুরের একটি বেসরকারী হাসপাতাল এরপর বাইপাসের দু’টি হাসপাতালে ছোটাছুটি করেন ক্রোমা। কিন্তু করোনার আবহে ক্রোমার পাশে দাঁড়িয়ে সদ্যোজাতকে ভর্তি নিতে অস্বীকার করে হাসপাতালগুলো। সবচেয়ে মজার বিষয় শ্যামবাজারের যে বেসরকারি হাসপাতালে বৃহস্পতিবার জন্ম নিয়েছিল ক্রোমার কন্যাসন্তান, সেই হাসপাতালও নাকি রবিবার ফিরিয়ে দেয় ক্রোমাকে।

শেষমেষ পার্ক স্ট্রিটের একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয় সদ্যোজাতকে। চিকিৎসকেরা স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর জানান জন্ডিসে আক্রান্ত হয়েছে ক্রোমার কন্যাসন্তান। সংবাদমাধ্যমকে কন্যাসন্তানের জন্ডিসে আক্রান্ত হওয়ার খবর জানান ক্রোমার স্ত্রী পূজা। যদিও চারদিনের শিশুকন্যা আপাতত স্থিতিশীল আছে বলেই খবর। চিকিৎসকেরা নিয়মিত পর্যবেক্ষণে রেখে চলেছেন। তবে সরকারি নির্দেশিকা সত্ত্বেও এমন গাফিলতি ফের একবার চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল করোনা আবহে শহরের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার আসল চিত্রটা।

উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার শ্যামবাজারের একটি বেসরকারি হাসপাতালে কন্যাসন্তানের জন্ম দেন ক্রোমার স্ত্রী পূজা। মেয়ের নামও ইতিমধ্যেই স্থির করে ফেলেছেন ক্রোমা এবং তাঁর স্ত্রী। তাঁরা সদ্যোজাতর নাম রেখেছেন ‘বিন্দু’। যদিও এই নামটি তাঁর মায়ের দেওয়া বলে জানিয়েছেন ক্রোমা। যিনি মাসখানেক আগে প্রয়াত হয়েছেন। তবে মায়ের ইচ্ছেমতোই মেয়ের নাম রেখেছেন লাইবেরিয়ান।

গত মরশুমের শেষভাগে লাল-হলুদ জার্সি গায়ে আই লিগে খেললেও আপাতত কোনও ক্লাবের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ নন ক্রোমা। তবে আগামী মরশুমের কথা মাথায় রেখে নিজেকে ফিট রাখছেন নিয়মিত, জানিয়েছেন ক্রোমা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ