নয়াদিল্লি: যদি আইপিএল নিতান্তই আয়োজন করা সম্ভব না হয়, সেক্ষেত্রে আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপে উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান হিসেবে অবশ্যই প্রথম পছন্দ হওয়া উচিৎ কেএল রাহুল। জানালেন কৃষ্ণমাচারি শ্রীকান্ত। একইসঙ্গে আইপিএল না হলে ধোনির আন্তর্জাতিক কেরিয়ারও শেষ হয়ে যাবে বলে মত ‘৮৩ বিশ্বজয়ী দলের ক্রিকেটারের। কারণ বিশ্বকাপ পরবর্তী সময়ে নির্বাচকরা ধোনিকে নিয়ে বিশেষ ভাববেন না বলেই মনে করেন শ্রীকান্ত।

সাম্প্রতিক সময়ে ব্যাটে রানের খরা। উইকেটের পিছনে দাঁড়িয়েও সেই অর্থে ভরসা আদায় করতে ব্যর্থ তরুণ উইকেটরক্ষক ঋষভ পন্ত। তাই আসন্ন টি-২০ বিশ্বকাপের আগে আইপিএল ছিল পন্তের কাছে অগ্নিপরীক্ষা। কিন্তু আইপিএল অনুষ্ঠিত না হলে নিজেকে প্রমাণ করার মঞ্চ হারাবেন পন্ত। সেক্ষেত্রে অবশ্যই প্রথম পছন্দ হিসেবে দলের সঙ্গে অস্ট্রেলিয়া যবেন কেএল রাহুল। এমনটাই জানিয়েছেন শ্রীকান্ত।

পক্ষান্তরে সাম্প্রতিক সময়ে জাতীয় দলে নিজেকে যে কোনও পজিশনে প্রমাণ করেছেন রাহুল। উইকেটের পিছনেও দক্ষিণী এই ক্রিকেটার যথেষ্ট সপ্রতিভ। স্বাভাবিকভাবেই শ্রীকান্ত চাইছেন বিশ্বকাপে উইকেটকিপিংয়ের দায়িত্ব সামলাক লোকেশ রাহুলই। শ্রীকান্তের কথায়, আমি নির্বাচক হলে যে সিদ্ধান্ত নিতাম সেটাই জানাচ্ছি। যদি আইপিএল না হয়, ধোনির দলে ফেরার রাস্তা কার্যত বন্ধ। সেক্ষেত্রে লোকেশ রাহুলকেই উইকেটকিপার হিসেবে দেখতে চাইতাম আমি। শুধুমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে ঋষভ পন্ত স্কোয়াডে থাকলে আপত্তি নেই। কারণ পন্ত অত্যন্ত প্রতিভাবান।’

আইপিএল না হলে ধোনির কেরিয়ারের ভবিষ্যৎ প্রসঙ্গে শ্রীকান্ত জানান, ‘আইপিএল না হলে ধোনির বিশ্বকাপ স্কোয়াডে জায়গা করে নেওয়া সত্যিই কঠিন হয়ে দাঁড়াবে। ও অত্যন্ত ফিট, কিংবদন্তি এবং অসাধারণ ক্রিকেটার। আমি ধোনির একজন বড় অনুরাগী। তবে বিশ্বকাপের সঙ্গে বিষয়টিকে গুলিয়ে ফেললে ভুল হবে। কেননা এক্ষেত্রে দেশের স্বার্থ সবার আগে বিবেচ্য হওয়া উচিৎ। ব্যক্তিস্বার্থের কোনও জায়গা নেই এখানে।’

কলকাতার 'গলি বয়'-এর বিশ্ব জয়ের গল্প