স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: জলকামান, কাঁদানে গ্যাস এবং লাঠিচার্জ করে বিজেপি যুব মোর্চার মিছিল আটকাল কলকাতা পুলিশ। পুলিশের লাঠিচার্জ এর ফলে বেশ কিছু বিজেপি কর্মী রক্তাক্ত হয়েছেন। তাঁদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। জখম হয়েছে পুলিশ। সেন্ট্রাল এভিনিউতে বিজেপির মিছিল যখন পৌঁছেছে, তখনই তাঁকে ব্যারিকেড করে আটকে দেওয়া হয়।

এরপর বিজেপি কর্মীরা ব্যারিকেড টপকে যেতে চাইলে ই.মলের সামনে দুটি জলকামান চালায় পুলিশ। কিন্তু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসেনি। তারপরই, কাঁদানে গ্যাসের সেল ফাটানো হয়। মিছিল ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। কিন্তু, বিজেপির কিছু সমর্থকদের উপর লাঠি চার্জ করতে থাকে পুলিশ। মাথা ফেটে যায় এক কর্মীর।

রাজ্য বিজেপির তরফ থেকে নেতৃত্বে ছিলেন যুব মোর্চার সভাপতি দেবজিত সরকার। তাঁকে গ্রেফতার করা হয়। হুগলির সাংসদ লকেট চট্টোপাধ্য়ায়, সাধারণ সম্পাদক রাজু বন্দ্য়োপাধ্য়ায় এবং সায়ন্তন বসুও মিছিলে ছিলেন। সায়ন্তন বাবু বলেন, মিছিলের অনুমতি দেওয়া হয়নি। শান্তিপূর্ণ মিছিলে পুলিশের হামলা হয়েছে। রাজ্যে কোন গণতান্ত্রিক অবস্থানেই এখন জল কামান চলে। কাঁদানে গ্যাস এবং লাঠিচার্জ হয়।

দেবজিত আরও একটি চাঞ্চল্যকর অভিযোগ এনেছেন। তাঁর অভিযোগ, কলকাতার কিছু বিশেষ এলাকার মানুষ দিনের পর দিন ইলেক্ট্রিক বিল জমা না দিয়েও পার পেয়ে যাচ্ছেন।

সার্বিকভাবে বিজেপির অন্দরের বিবেচনা, ক্যালকাটা ইলেক্ট্রিক সাপ্লাইতে বহুবিধ দুর্নীতি রয়েছে। এই দুর্নীতির বিরুদ্ধে আন্দোলন জরুরি। সূত্রের খবর, এই সংস্থার কয়েকজন রাজ্য বিজেপিতে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে। তবে, কোনও বিশেষ শিল্পপতির বিরুদ্ধে আন্দোলন হবে না। সংস্থার নীতির বিরুদ্ধেই হবে।