সাউদাম্পটন: ইউরো কোয়ালিফায়ারে দুর্বল প্রতিপক্ষকে পাঁচ গোল দিলেও তিন গোল হজম করল ইংল্যান্ড৷ মঙ্গলবার রাতে সাউদাম্পটনের সেন্ট ম্যারি’স স্টেডিয়ামে ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে কসোভোর বিরুদ্ধে ৫-৩ গোলে জিতল হ্যারি কেনের দল। চার ম্যাচের সবকটিতে জিতে ১২ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ শীর্ষে রয়েছে ইংল্যান্ড। চার ম্যাচে মোট ১৪টি গোল করে সাউথগেটের ছেলেরা৷

ইংল্যান্ডের ফরোয়ার্ড বিশ্বমানের হলেও রক্ষণ অত্যন্ত নিম্নমানের৷ তাই অপেক্ষাকৃত দুর্বল প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে তিন গোল হজম করতে হয় গ্যারেথ সাউথগেটের দলকে৷ ম্যাচের প্রথম মিনিটেই নিজেদের ভুলে গোল খেয়ে বসে ইংল্যান্ড। ডিফেন্ডার মাইকেল কিনের ভুল পাসে সতীর্থের পা-ঘুরে বল পেয়ে জোরাল শটে কসোভোকে এগিয়ে দেন মিডফিল্ডার ভালোন বেরিসা।

সমতায় ফিরতে অবশ্য দেরি হয়নি ইংল্যান্ডের। অষ্টম মিনিটে রাহিম স্টার্লিং হেডে স্কোর ১-১ করে থ্রি-লায়ন্স৷ মিনিট দশেক পর ব্যবধান বাড়ায় ইংল্যান্ড৷ ডি-বক্সে এক জনকে কাটিয়ে দলকে এগিয়ে দেন ইংল্যান্ড ক্যাপ্টেন হ্যারি কেইন। প্রথমার্ধের শেষ আট মিনিটের মধ্যে আরও তিন গোল করে ইংল্যান্ড। ৩৮ মিনিটে ডিফেন্ডার ভয়ভোদার আত্মঘাতী গোলে ৩-১ করে থ্রি-লায়ন্স৷ এর পর ৪৪ মিনিটে আন্তর্জাতিক ফুটবলে প্রথম গোল করেন জডন স্যানচো। দু’মিনিটের ব্যবধানে আরও একটি গোল করেন ১৯ বছর বয়সি তরুণ ব্রিটিশ মিড-ফিল্ডার।

বিরতির আগে ৫-১ ব্যবধানে পিছিয়ে পড়েও হাল ছাড়েনি কসোভো। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুর দিকে দু’ গোল করে লড়াইয়ে ফেরে তারা। ৪৯ মিনিটে সতীর্থের পাস নিয়ন্ত্রণে নিয়ে ম্যাচে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন বেরিসা। আর মিনিট ছ’য়েক পর পেনাল্টি থেকে স্কোরলাইন ৫-৩ করেন মুরিকি।

৬৩ মিনিটে অবশ্য স্কোরলাইন ৬-৩ করার সুযোগ ছিল ইংল্যান্ডের সামনে৷ রস বার্কলি প্রতিপক্ষের ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পোনাল্টি পায় ইংল্যান্ড। পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন কেন। ইংল্যান্ড ক্যাপ্টেনের পেনাল্টি আটকে দেন কসোভো গোলরক্ষক। আট মিনিট পর ম্যাচ স্টার্লিংয়ের জোরালো শট পা দিয়ে আটকে দেন কসোভো গোলকিপার৷

ইউরোপের দলগুলোর মধ্যে রেকর্ড টানা ১৫ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর হারের মুখ দেখল কসোভো। এর আগে ২০১৭ অক্টোবরে রাশিয়া বিশ্বকাপ কোয়ালিফায়ারে শেষবার হেরেছিল ২০১৬ ফিফা ও উয়েফার সদস্যপদ পাওয়া দেশটি।