কলকাতা: কলকাতাতেও এবার করোনা আতঙ্ক। ভয়ঙ্কর চিনা ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে এক চিনা যুবতীকে ভরতি করা হয়েছে বেলাঘাটা আইডি হাসপাতালে। গতকাল রাতে ওই যুবতীকে ভরতি করা হয়। হাসপাতাল সূত্রে খবর, অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই যুবতী চিন থেকে কলকাতায় বেড়াতে এসেছিলেন। এর থেকে বেশি ওই করোনা আক্রান্ত সন্দেহভাজন সম্পর্কে জানা যায়নি।

প্রথমে ইস্টার্ন মেট্রোপলিটন বাইপাসের কাছে একটি বেসরকারি হাসপাতাল থেকে ভরতি করা হয়েছিল যুবতীকে। পড়ে বেশি রাতে তাঁকে বেলেঘাটা আইডিতে নিয়ে আসা হয়। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হিসাবে তাঁকে সন্দেহ করা হলেও যুবতীর চিকিৎসার জন্য সমস্যা হয়ে দাঁড়াচ্ছে ভাষা। করোনার উপসর্গগুলি জেনে তিনি এর আগে থেকেই কোনও রোগে আক্রান্ত ছিলেন কি না তা জানার চেষ্টা করছেন চিকিৎসকরা।

এদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ থেকে শুরু রাজ্যের স্বাস্থ্য আধিকারিক এই বিষয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি সংবাদ মাধ্যমে।প্রসঙ্গত রাজ্যের উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে এবং কলকাতায় বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে নোভেল করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ব্যবস্থা করা হয়েছে ।

করোনার প্রকোপে চিনে মৃত বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮০। আক্রান্তের সংখ্যা প্রায় ২,৩০০। ভারতে একশোর বেশি মানুষকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, রাজস্থানের চার জেলার ১৮ জন চিন থেকে দেশে ফিরেছেন। ইতিমধ্যেই তাঁদের পর্যবেক্ষণে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি চিন থেকে এমবিবিএস করে ফিরেছেন জয়পুরের এক বাসিন্দা। বর্তমানে তাঁকে এসএমএস মেডিকেল কলেজে ভরতি করা হয়েছে। তাঁকে একটি আলাদা ওয়ার্ডে রাখার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সন্দেহভাজনদের নমুনা পুনে ন্যাশনাল ভাইরোলজি ল্যাবরেটরিতে পাঠানো হচ্ছে। চিন থেকে ভারতে ফিরে আসা ওই ব্যক্তিদের আগামী ২৮দিন পর্যবেক্ষণে রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

করোনার সংক্রমণ আটকাতে ইউহান-সহ চিনের মোট পাঁচটি শহরে সমস্ত সরকারি পরিবহন ব্যবস্থা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে ৷ ইউহান পুরোপুরিভাবে বন্ধ । শহরের বাইরে যাওয়ার সমস্ত রেল ও বিমান পরিষেবাও বন্ধ রয়েছে।