স্টাফ রিপোর্টার, দিঘা: ভরা জোয়ার৷ উত্তাল সমুদ্র৷ তাই পর্যটকদের সমুদ্রে নামার ক্ষেত্রে পুলিশ ও প্রশাসনের তরফে জারি করা হয়েছিল নিষেধাজ্ঞা৷ কিন্তু সেই নিষেধাজ্ঞার তোয়াক্কা না করেই প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে বিপজ্জনক ঢেউয়ে স্নান করতে নামে কলকাতার এক পর্যটক৷ তাতেই ঘটে বিপত্তি৷ ওই জলেই তলিয়ে গেল যুবক৷ এখনও পর্যন্ত ওই পর্যটকের কোনও খোঁজ মেলেনি৷ সন্ধান পেতে জোরদার তল্লাশি শুরু হয়েছে৷ নামানো হয়েছে বোট৷

পুলিশ জানিয়েছে, নিখোঁজ পর্যটকের নাম মহঃ কোয়াইশ৷ ১৮ বছর বয়স৷ বাড়ি কলকাতার ৩৫নং ভগবানমন্ডল স্ট্রিট, নোয়াদা পাড়ায়৷ শুক্রবার দুপুর নাগাদ বন্ধুদের সঙ্গে সমুদ্রতটে আসে৷ তারা ছিল নিউ দিঘার ক্ষণিকা ঘাট ও পুলিশ হলিডে হোমের মাঝামাঝি জায়গায়৷ তখন ভরা জোয়ার৷ বড় বড় ঢেউ উঠছে সমুদ্রে৷ বিপদ বুঝে ওই জায়গা থেকে একাধিকবার পর্যটকদের তুলে দেয় পুলিশ। কিন্তু পুলিশের নির্দেশকে অমান্য করে সঙ্গীসাথীদের নিয়ে জলে নেমে পড়ে ওই যুবক। আচমকাই জলের তোড়ে ভেসে যায় কেউ কেউ৷ অন্যান্যরা কোনওরকমে পাড়ে চলে এলেও ওই যুবক তলিয়ে যায়৷ তারপর থেকে কোনও খোঁজ নেই৷

খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে ছুটে আসে পুলিশ। তাঁর খোঁজে জোরদার তল্লাশি চলছে। তবে এখনও পর্যন্ত ওই যুবকের কোনও সন্ধান পাওয়া যায়নি। দিঘা থানার ওসি বাসুকিনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, ৯ জন বন্ধু মিলে আজই নিউ দিঘার একটি হোটেলে এসে উঠেছিল ওই যুবক। দুপুরে স্নান করতে বিচে আসে৷ ওই সময় তাদের জলে নামতে বারণ করা হয়৷ কথা না শোনায় পুলিশ তাদেরকে তুলেও দেয়। কিন্তু তারপরেও ওরা জোর করে সমুদ্রে নেমে পড়ে৷ তাতেই ঘটে বিপত্তি। এই মুহূর্তে ৪টি বোট তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে।