সোয়েতা ভট্টাচার্য, কলকাতা : উৎসব প্রেমী কলকাতা৷ শ্রেষ্ঠ উৎসব দুর্গা পুজো হোক বা ক্রিসমাস, ধর্ম জাতি নির্বিশেষে কীভাবে আনন্দের জোয়ারে ভাসাতে হয় তা হয়তো কলকাতাবাসীদের না দেখলে বোঝা দুষ্কর৷ তবে এই উৎসবের মেজাজে অনেক সময় নিয়ম কে তোয়াক্কা না করে গাফিলতির ছবি শহরের আনাচে কানাচে উঠে আসে৷ আর সেই ছবি মুছতে মরিয়া থাকেন লালবাজারের কর্তারা৷ ঠিক সেই ভাবেই বড়দিন আর বর্ষবরণ উপলক্ষে শহর কলকাতাকে নিরাপদ রাখতে এবছর অনেক আগে থেকেই অভিযান চালিয়েছিলেন পুলিশ কর্তারা৷

এই অভিযানে একদিকে যেখানে লালবাজার কর্তারা নজর দিয়েছিলেন সুরক্ষা ব্যবস্থার দিকে, অন্যদিকে মদ্যপান করে গাড়ি চালানোর বিরুদ্ধে অনেক বেশি সরব হয়েছিলেন তাঁরা৷ এবছর লালবাজার কর্তাদের এই অভিযান অনেকটা সাফল্য পেয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে৷ তথ্য বলছে বিগত কয়েক বছরের তুলনায় এবছর বড়দিনে শহরবাসী অনেকটাই সংযত হয়ে উৎসব পালন করেছেন৷ এই মরশুমে মদ্যপান করে গাড়ি চালানো হোক বা অসভ্য আচরন সব ক্ষেত্রেই আটক বা গ্রেফতারির সংখ্যা অনেকটাই কম বলে জানাচ্ছেল পুলিশ আধিকারিকেরা৷ এবছর বড়দিন বা তার আগের দিনে এই সংখ্যা দেখে কিছুটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছেন লালবাজারের আধিকারিকেরা৷

লালবাজার সূত্রে জানা যাচ্ছে ক্রিসমাসের আগের দিন শহরে মদ্যপান করে মোট ২৫ জন কে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ পাশাপাশি অসভ্য আচরনের জেরে মোট গ্রেফতারির সংখ্যা মোট ৪৪৷ এই সংখ্যার মধ্যে নর্থ ডিভিশন থেকে ১৬, সাউ ইস্ট ডিভিশনে ৬, ইস্ট ডিভিশন থেকে ১২ এবং বন্দর এলাকা থেকে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ৷ তার সঙ্গে পুলিশ কর্তারা ইল্লেখ করেছেন কোনও অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি এই দিনের শহরবাসীর প্রিয় ডেস্টিনেশন পার্ক স্ট্রিটে৷ এবার প্রসঙ্গ বড়দিনের৷

এই দিনে এই সংখ্যা রেকর্ড গড়ল মহানগর৷ শহরে অসভ্য আচরনের অভিযোগে এইদিন পুলিশ কর্তারা মোট ছয় জনকে গ্রেফতার করা গয়েছে৷ এই ছয় জন কেই দক্ষিন কলকাতার এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয৷ তবে পুলিশ কর্তারা জানাচ্ছেন মদ্যপান করে গাড়ি চালানোর অভিযোগে এক জনও গ্রেফতার হয়নি৷ এই রেকর্ডে খুশী লালবাজার৷ বিগত বছরের তুলনায় এই সংখ্যা অনেকটাই কম বলে জানাচ্ছেন পুলিশ কর্তারা৷

এবছর মদ্যপান অবস্থায় গাড়ি চালানোর বিরুদ্ধে করা অভিযান চালিয়েছিল কলকাতা পুলিশ৷ শুধু তাই নয় এই প্রবতার বিরুদ্ধে মানুষ কে সচেতন করতে অনেক আগে থেকে উদ্যোগ নিয়েছিলেন লালবাজারের আধীকারিকেরা৷ তার কারন কলকাতা পুলিশের ট্রাফিক বিভাগের আধিকারীকদের নজরে পরেছিল শহরে দুর্ঘটনার গারে বেশীরভাগ কারন রয়েছে মদ্যপ অবস্থায় গাড়ি চালানো৷ এই তথ্য কে মাথায় রেখে এই প্রবতার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিল কলকাতা পুলিশ৷ এক পুলিশ কর্তা জানান,” এই বছর এই তথ্য প্রমা করল পুলিশের সচেতন অভিযানে সারা দিয়েছে তিলোত্তমাবাসী৷ এই ভাবে শহর কলকাতা নজির গড়ল বলা যেতে পারে৷ ”

বড়দিন পেরিয়ে এবার শহরবাসী মাতবে বর্ষবরণে৷ এতিমধ্যেই পার্ক সট্রিট থেকে শুরু করে শহরের বিভিন্ন এলাকা সেই প্রস্তুতিতে ব্যস্ত৷ অন্যদিকে এবারের ক্রিসমাসের মতই যাতে নিরাপদ এবং সালিনতার সঙ্গে এই মরশুমটি কেউ শহরবাসী উপভোগ করতে পারে সেই চেষ্টাই চালাচ্ছেন লালবাজার আধিকারীকেরা৷