কলকাতা:   Spinning_Ashoka_Chakraরাত পোহালেই স্বাধীনতা দিবস উদযাপনে মাতবেন শহরবাসী।‌ নিরাপত্তার চাদরে কার্যত মুড়ে ফেলা হয়েছে শহর ও শহরতলি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক নতুন করে নাশকতার আশঙ্কার কথা জানিয়েছে৷‌ তাই দেশের অন্য শহরের মতো কলকাতাতেও বেড়েছে নিরাপত্তা। আগামীকাল শনিবার কলকাতার সর্বত্র ছড়িয়ে থাকবেন ১০ হাজার পুলিশকর্মী৷‌ থাকবে পুলিশের বিভিন্ন দল৷‌ আকাশপথেও চলবে নজরদারি৷‌ গত ক’দিন ধরেই কলকাতার সব গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় তল্লাশি চলছে পুলিশের।‌ শহরে ঢোকা এবং বেরনোর মুখে সর্বত্রই চলছে নজরদারি৷‌ গাড়ি থেকে যাত্রীদের নামিয়ে ভেতরটা পরীক্ষা করা হচ্ছে৷‌ রেল ও মেট্রো স্টেশন চত্বর, বিমানবন্দর, বিভিন্ন বড় বাজার, শপিং মল সর্বত্র চলছে তল্লাশি।‌ শেষ মুহূর্তের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে দফায় দফায় বৈঠকে বসছেন লালবাজারের শীর্ষকর্তারা। গোটা কলকাতাকে ১৪টা জোনে ভাগ করা হয়েছে৷‌ প্রত্যেকটা জোনের দায়িত্বে থাকবেন ১ জন উপনগরপাল পদমর্যাদার পুলিশ৷‌ তাছাড়া থাকবে স্পেশাল অপরেশন গ্রুপ৷‌ বৃহস্পতিবার কলকাতার বিভিন্ন জায়গা পরিদর্শন করেন নগরপাল সুরজিৎ করপুরকায়স্হ।
অন্যদিকে, শনিবার সকালে রেড রোডে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷‌ সেইসময় হেলিকপ্টার থেকে পুষ্প বৃষ্টি করা হবে৷‌ আজ শুক্রবার রাত থেকেই তৃণমূলসহ বিভিন্ন সংগঠন স্বাধীনতা দিবস পালন শুরু করবে৷‌ কলকাতার বহু জায়গায় মধ্যরাতে আতশবাজি পোড়ানো হবে৷‌ পুলিশের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, সন্দেহজনক কিছু দেখলেই ১০০ ডায়াল করতে। পুলিশ সূত্রে খবর, রেড রোডে মুখ্যমন্ত্রীর অনুষ্ঠানের জন্য মোতায়েন থাকবে ৭টি কুইক রেসপন্স টিম৷‌ ১১টি এইচ আর এফ এস টিম৷‌