ফাইল ছবি

স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে শহরে চলছে মধুচক্রের কারবার৷ অভিজাত এলাকায় স্পা পার্লারের আড়ালে বসছে মধুচক্র৷ অন্যদিকে পুলিশি অভিযানও অব্যাহত রয়েছে৷ এবার দক্ষিণ কলকাতার কসবা এলাকায় হানা দিয়ে ৭ জনকে গ্রেফতার করল কলকাতা পুলিশ৷ এর মধ্যে একজন খদ্দেরের বয়স ৬৫ বছর৷

দক্ষিণ কলকাতার কসবার রাজকৃষ্ণ মুখার্জি রোড৷ ওই এলাকায় রয়েছে একটি ইংরাজি মাধ্যম স্কুল৷ তার পাশেই ছিল লায়লা লুইস স্পা পার্লার৷ সেখানে নতুন নতুন লোকের আনাগোনা বেড়েই চলছিল৷ তাতে বিরক্ত ছিল অভিভাবকরা৷

পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে গতকাল সেখানে অভিযান চালায়৷ এবং গোয়েন্দারা হাতেনাতে ৭জনকে আটক করেন৷ এর মধ্যে তিনজন খদ্দের৷ একজন খদ্দের বয়স আবার ৬৫ বছর৷ যার নাম অমিত মিত্র৷ বাকি দু’জন হল মণীশ শর্মা, রাজেন্দ্র রামপুরিয়া৷ এছাড়া পার্লারের তিনজনকে গ্রেফতার করে গোয়েন্দা পুলিশ৷ এরা হল, ম্যানেজার পারমিতা রায়,সহ ম্যানেজার গণেশ সাউ ও নিশা পাত্র৷ একজন দালাল দীপক সরকার৷ তবে পলাতক ওই স্পা পার্লারের মালিক৷

এর আগে শহরে স্পা- পার্লারে লালবাজার গোয়েন্দা পুলিশ রাতভর অভিযান চালিয়ে ৩০ জনকে গ্রেফতার করে৷ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কলকাতার বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চালায় লালবাজারের গোয়েন্দা পুলিশ৷ কালীঘাটের সদানন্দ রোড,নিউ আলিপুরের সাহাপুর কলোনি ও শেক্সপিয়র সরণী থানা এলাকার কয়েকটি পাবে চলে অভিযান৷ তাতে স্পার পার্লারের মালিক, ম্যানেজার সহ ৩০ জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ৷ তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ,স্পা-পার্লারের আড়ালে চলছিল মধুচক্রের কারবার৷ এবং বেআইনিভাবে গভীর রাত পর্যন্ত ওই পাবে চলত অসামাজিক কাজকর্ম৷

আইনকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে কীভাবে দিনের পর দিন এভাবে দেহ ব্যবসা চলছিল তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। এমনকি প্রশ্নের মুখে পুলিশের ভূমিকাও।