নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে দিল্লিতে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করল কলকাতা পুলিশ৷ শুক্রবার সকালেই নয়াদিল্লিতে মুকুল রায়ের বাসভবনে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চালান কলকাতা পুলিশের আধিকারিকরা৷

বড়বাজারের একটি প্রতারণা মামলায় তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়৷ সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই মুকুল রায়কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় বলে খবর৷ বেলা এগারোটা নাগাদ তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু হয়৷ দু-দিন আগেই ব্যাঙ্কশাল আদালত মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে৷

আরও পড়ুন : তিন তালাককে দেহব্যবসার সঙ্গে জড়িয়ে বিতর্কের শীর্ষে বিজেপি বিধায়ক

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ২০১৮-এর ৩১ জুলাই বড়বাজার থানায় প্রতারণা ও দুর্নীতি সংক্রান্ত বিষয়ে একটা এফআইআর দায়ের হয়। এরপর একজন সরকারি কর্মীর কাছ থেকে ৯০ লক্ষ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ। সেই মামলার তদন্তের সময়েই মুকুল রায়ের নাম উঠে আসে বলে পুলিশের দাবি। এরপর ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে ১৬০ ধারায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মুকুল রায়কে নোটিস পাঠিয়ে তলব করে কলকাতা পুলিশ।

তবে দিল্লি হাইকোর্টের রায়ে স্বস্তি পান বিজেপি নেতা মুকুল রায়৷ বৃহস্পতিবার আদালত জানিয়ে দেয়, ১০ দিনের মধ্যে তাঁকে গ্রেফতার করা যাবে না৷ জিজ্ঞাসাবাদ করার হলে দিল্লিতে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে হবে৷ তদন্তের স্বার্থে মুকুল রায়কে পুলিশকে সহযোগিতা করার নির্দেশ দেয় আদালত৷

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.